রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় গত ১৫ বছর প্রবাসীদের কাছ থেকে টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়েছে একটি চক্র। এ পর্যন্ত তিন শতাধিক প্রবাসীকে অজ্ঞান করে তাঁদের সর্বস্ব লুট করেছে চক্রের সদস্যরা। অবশেষে গত শনিবার রাজধানীর বিমানবন্দর ও কদমতলী এলাকা থেকে চক্রটির হোতা আমির হোসেন ও তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। গতকাল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

গ্রেপ্তার অপর তিনজন হলো- লিটন মিয়া ওরফে মিল্টন, জাকির হোসেন ও আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে পারভেজ।
র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, এই চক্রের সর্বোচ্চ সদস্য সংখ্যা ১০ জন। চক্রের হোতা আমিরের বিরুদ্ধে অজ্ঞান ও মলম পার্টি সংক্রান্ত ১৫টিরও বেশি মামলা রয়েছে। বিমানবন্দর এলাকায় ফাস্টফুডের দোকানে চাকরির আড়ালে অজ্ঞান পার্টি নিয়ন্ত্রণ করত আমির। তার বাড়ি বরিশালে।

র‌্যাব জানায়, চক্রের সদস্যরা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের টার্মিনালে হাতে পাসপোর্ট ও লাগেজ নিয়ে নিজেরা প্রবাসফেরত ছদ্মবেশ ধারণ করত। প্রবাসীরা বিমানবন্দর থেকে বের হলে তাঁদের পিছু নিত। কুশল বিনিময় করে চক্রের অন্য সদস্যদের নিকটাত্মীয় বলে পরিচয় করিয়ে বাসের টিকিট কেটে যাত্রা শুরু করত একসঙ্গে। পাশাপাশি সিটে বসে কৌশলে প্রবাসীকে চেতনানাশক ওষুধ মিশ্রিত বিস্কুট খাইয়ে অচেতন করে ফেলত তারা। পরে প্রবাসীর পকেটে থাকা লাগেজের টোকেন নিয়ে পথে ওই টোকেন দেখিয়ে বাস থেকে লাগেজ নিয়ে নেমে যেত তারা।