বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) অভিন্ন নীতিমালা গ্রহণের প্রতিবাদে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৫ একরের স্বল্প আয়তনে আইসিটি পার্ক স্থাপনে আপত্তি জানিয়ে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষক সমিতি। 

শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. কামরুজ্জামান এবং সাধারণ ড. মো. আবু সালেহ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এতে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস হয়নি। কিন্তু প্রশাসনিক কার্যক্রম চলেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. কামরুজ্জামান বলেন, রিজেন্ট বোর্ডে ইউজিসির পাঠানো অভিন্ন নীতিমালা অনুমোদন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে আইসিটি পার্ক স্থাপনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বুধবার সকাল থেকে ক্লাস বর্জন করেন শিক্ষকরা। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শ্রেণি কক্ষে তালা ঝোলানো রয়েছে। সব একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ রাখার পাশাপাশি প্রশাসনিক কার্যক্রমও বন্ধ রেখেছে শিক্ষকরা।

শিক্ষকদের কর্মবিরতির ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ সব ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসলেও ক্লাস না হওয়ায় ক্যাম্পাসে ঘোরাফেরা করছে। শিক্ষকদের কর্মবিরতি চললেও প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম ও প্রথম বর্ষ আর্কিটেকচার বিভাগের ড্রয়িং পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন যথারীতি চললেও খুলনার ও ভাটিয়াপাড়ার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার রিজেন্ট বোর্ডে ইউজিসি কর্তৃক প্রেরিত অভিন্ন নীতিমালা অনুমোদন ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অভ্যন্তরে আইসিটি পার্ক স্থাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার প্রতিবাদে শিক্ষক সমিতির এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিক্ষক সমিতি ও শিক্ষকবৃন্দের অভিন্ন নীতিমালা নির্দেশিকাটি হুবুহু গ্রহণ করার ব্যাপারে তীব্র আপত্তি থাকা সত্ত্বেও শিক্ষকদের সাধারণ সভার পরামর্শ মোতাবেক একাডেমিক কাউন্সিল কর্তৃক গঠিত অভিন্ন নীতিমালা পর্যালোচনা কমিটির কোনো সুপারিশ গ্রহণ না করে রিজেন্ট বোর্ডে ইউজিসি কর্তৃক প্রেরিত অভিন্ন নীতিমালা নির্দেশিকাটি হুবুহু অনুমোদন করা হয়েছে। অভিন্ন নীতিমালায় শিক্ষকদের নিয়োগ ও পদোন্নতির বিভিন্ন শর্তে অপষ্টতা ও অসামঞ্জস্যতা বিদ্যমান থাকায় এবং অভিন্ন নীতিমালা পর্যালোচনা কমিটির কোনো সুপারিশ গ্রহণ করা হয়নি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৫ একরের স্বল্প আয়েতনে আইসিটি পার্ক স্থাপনের তীব্র আপত্তি জানানো হয়। নতুন করে জমি অধিগ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়তন বৃদ্ধি করে উক্ত স্থানে আইসিটি পার্ক নির্মাণের দাবি জানানো হয়েছে। দাবি না মানা পযর্ন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সব প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যাক্রম থেকে বিরত থাকার জন্য শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানানো হয়। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দলিলুর রহমান শিক্ষকদের কর্মবিরতির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তারা আমাদের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে। তাদের সঙ্গে আমরা বিকেল সাড়ে ৩টায় সভা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তারা সাড়া দেয়নি। শিক্ষকদের ক্লাসে ফেরাতে ইতিমধ্যেই উপাচার্য মহোদয় উদ্যোগ নিয়েছেন। আশা করছি, তারা দ্রুত ক্লাসে ফিরবেন।

প্রসঙ্গত, গত জুন থেকে অভিন্ন নীতিমালা হুবহু গ্রহণ করার ব্যাপারে তীব্র আপত্তি জানিয়ে কর্মবিরতিতে গিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষকবৃন্দ। এদিকে গত আগস্ট মাসে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের তীব্র প্রতিবাদের মুখে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে আইসিটি (হাইটেক) পার্কের কাজ বন্ধ ঘোষণা করা হলেও পরবর্তীতে রিজেন্ট বোর্ডে তা পাশ করা হয়।