রাজশাহীর বাঘায় ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পড়ে যাওয়ার তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পার্থ সরকার (২৪) নামে এক যুবককে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার দুপুরে উপজেলার হাবাসপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত পার্থ সরকারের বাবা চিত্তরঞ্জন সরকার ৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, হাবাসপুর গ্রামের বাসিন্দা চিত্তরঞ্জন সরকার ও তার ছেলে পার্থ সরকার বাড়ি থেকে বের হয়ে খালি ভ্যান ঠেলে নিয়ে হাবাসপুরের রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন। বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী যাত্রীবাহী অপর একটি ভ্যানের সঙ্গে তাদের ভ্যানের ধাক্কা লাগে। এ সময় ভ্যানে থাকা এক নারী পড়ে যান। পার্থ তাকে তুলে দিয়ে নিজ গন্তব্যের দিকে চলে যান। পরে বাঘার পার্শ্ববর্তী চারঘাট উপজেলার বড়বড়িয়া গ্রামের রহিমের ছেলে মাসুদ রানা, আক্কাছের ছেলে বেলাল হোসেন ও বেল্লালের ছেলে আল আমিনসহ অজ্ঞাত আরও ৫/৬ জন হাবাসপুর এলাকা থেকে চিত্তরঞ্জন সরকারের সামনে পার্থকে তুলে নিয়ে গিয়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করে।

এ সময় স্থানীয়রা পার্থকে উদ্ধার করে ওই গ্রামের মালেক সরকারের বাড়িতে রাখেন। পরে সেখান থেকে বাঘার মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের সহায়তায় পার্থকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

বাঘা থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একজন উপ-পরিদর্শককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।