বগুড়ার শাজাহানপুরে একটি কচুক্ষেত থেকে ফাহিম ফয়সাল শিশির (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার সাজাপুর বানারশি গ্রামের একটি কচুক্ষেত থেকে তার মরদেহ উদ্ধার হয়। এর আগে সোমবার রাত থেকে সে নিখোঁজ ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, ছুরিকাঘাতে হত্যা করে মরদেহ কচুক্ষেতে ফেলে রাখা হয়েছে। 

ফাহিম সাজাপুর ফকিরপাড়া গ্রামের শাহাদাৎ হোসেন সাজুর ছেলে। সে বগুড়া সুলতানগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

মরদেহ উদ্ধারের খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে শাহজাহানপুর থানান এসআই শামীম জানান, সোমবার রাত ১০টা পর্যন্ত ফাহিমকে গ্রামে ঘুরাফেরা করতে দেখা গেছে। এরপর থেকে সে নিখোঁজ ছিল।  পরবর্তীতে আজ সকালে কচুক্ষেতে তার মরদেহ পায় স্থানীয়রা। পরে তাদের খবরে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। 

শামীম আরও জানান, ফাহিমের শরীরে ছোট ছোট অনেক ক্ষত রয়েছে। তাকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা।  

নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাতে বাড়ি ফেরেনি ফাহিম। স্থানীয় কিছু কিশোরের সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব ছিল। এই দ্বন্দ্বের জেরে তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে বলে তাদের দাবি। 

শাজাহানপুর থানার ওসি আবদুল্লা আল মামুন বলেন, হত্যাকাণ্ডের কারণ জানতে ও জড়িতদের ধরতে অভিযান চলছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।