বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন কুমার ঘোষের বিরুদ্ধে অস্ত্রের মুখে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন এক গৃহবধূ (৩০)। আজ মঙ্গলবার ওই গৃহবধূ সোনাতলা থানায় মামলা করেছেন বলে নিশ্চিত করেন সোনাতলা থানার ওসি জালাল উদ্দিন। 

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ওই গৃহবধূর বক্তব্য ভাইরাল হওয়ার পর অভিযুক্ত সুজন কুমার ঘোষ গাঢাকা দিয়েছেন। 

সোমবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এবং মামলার এজাহারে ওই গৃহবধূ জানান, সোনাতলা সদরের নামাজখালী গ্রামের সুবাস চন্দ্র ঘোষের ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন কুমার ঘোষ বেশ কিছুদিন আগে তার গলায় ছুরি ধরে ধর্ষণ করেন। এরপর থেকে প্রতিনিয়ত স্বামী-সন্তানকে হত্যার হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করে আসছেন। এতে অতিষ্ঠ হয়ে অবশেষে মুখ খোলার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। 

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল হাসান নয়ন বলেন, অভিযোগের বিষয়টি আমরা শুনেছি। ঘটনা সত্য কিনা যাচাই করে দলীয় সভা ডেকে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন বলেন, গোয়েন্দা পুলিশ ও থানা পুলিশ আসামিকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালাচ্ছে।