বন্যার্তদের ত্রাণের অভাব হবে না: প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯      

গাইবান্ধা প্রতিনিধি

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান— ফাইল ছবি

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, সরকারের হাতে পর্যাপ্ত ত্রাণসামগ্রী মজুদ রয়েছে। বন্যাকবলিত মানুষের কাছে তা পৌঁছে দেওয়া হবে। ত্রাণের সংকট হবে না।

শুক্রবার গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির বিশেষ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক রোকসানা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ কামাল, সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া, পৌর চেয়ারম্যান শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবীর মিলন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক, ফুলছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম সেলিম পারভেজ প্রমুখ।

সভায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আলমগীর কবীর গাইবান্ধার বন্যা পরিস্থিতি ও ত্রাণ তৎপরতা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বক্ষণিক বন্যার্ত মানুষের খোঁজ-খবর রাখছেন। তিনি বন্যাকবলিতদের জন্য ত্রাণসামগ্রীসহ যেখানে যা প্রয়োজন সব ধরনের সহায়তা দানের নির্দেশ দিয়েছেন। টাকার কোনো অভাব হবে না।

তিনি গাইবান্ধার বানভাসি মানুষের জন্য ৫০০ তাঁবু, ৫০০ বান্ডিল ঢেউটিন, ২০০ টন চাল ও ৫ লাখ টাকা তাৎক্ষণিক বরাদ্দ দেন। শিশু ও গোখাদ্য সংকটে সহায়তা দানের আশ্বাস দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, রোববারের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জরুরি খাদ্য পরিস্থিতি মোকাবেলায় রুটি ও হালুয়া বিতরণের পরামর্শ দেন।

পরে প্রতিমন্ত্রী ফুলছড়ি উপজেলার বিভিন্ন বন্যকবলিত এলাকা পরিদর্শন করে ফজলুপুর ইউনিয়নে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।