ফল প্রত্যাখ্যান রিটার

রংপুরবাসী সবাইকে নিয়ে কাজ করতে চান সাদ এরশাদ

প্রকাশ: ০৬ অক্টোবর ২০১৯      

রংপুর অফিস

কেন্দ্রীয় নেতারা ফুলেল শুভেচ্ছা জানান সাদ এরশাদকে- সমকাল

জাতীয় পার্টির (জাপা) মনোনয়ন নিয়ে অভিমানী নেতাকর্মীসহ রংপুরবাসী সবাইকে নিয়ে সদরের উন্নয়নে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন রংপুর-৩ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে বিজয়ী মহজোটের প্রার্থী রাহাগীর আল মাহি সাদ এরশাদ।

এদিকে নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমান ফল প্রত্যাখ্যান করেছেন।

শনিবার রাতে উপনির্বাচনের ফল ঘোষণার পর জাপার প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের পল্লী নিবাস বাসভবনে ভিড় করেন নেতাকর্মীরা। একে অপরকে মিষ্টি খাইয়ে আনন্দ-উল্লাস করেন। লাঙ্গল উঁচিয়ে 'এরশাদ জিন্দাবাদ, সাদ এরশাদ জিন্দাবাদ, এরশাদের মাটি জাতীয় পার্টির ঘাঁটি' স্লোগান দিতে থাকেন তারা। সাদ এরশাদকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে সদর আসনের ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড থেকে নেতাকর্মী এবং শুভাকাঙ্ক্ষীরা আসতে থাকেন। ফুলে ফুলে সিক্ত হন সাদ এরশাদ।

নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ায় তার অনুভূতি জানতে চাইলে সাদ এরশাদ সমকালকে বলেন, আমার বাবার জন্য আমি এই আসন থেকে নির্বাচিত হতে পেরেছি। তিনি বেঁচে থাকলে আমার আনন্দের মাত্রাটা আরও বেশি হতো। এই জয়ের অনুভূতি বাবার সঙ্গে ভাগাভাগি করতাম।

তিনি বলেন, রংপুরের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার চেষ্টা করব। এর জন্য রংপুরের মানুষের সহযোগিতা দরকার। নির্বাচনে যারা আমার বিরোধিতা করেছেন, তাদের ফিরে আসার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা মিলেমিশে একসঙ্গে কাজ করতে চাই।

এদিকে ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে শনিবার রাতে নগরীর রাধাবল্লভের নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমান। তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমি বারবার যে আশঙ্কার কথা বলেছিলাম, তাই হয়েছে। এ নির্বাচন কমিশন যতই আশ্বাস দিক, তারা স্বাধীন নয়। গত একাদশ সংসদ নির্বাচন থেকে এই উপনির্বাচন পর্যন্ত আমাদের দাবি অনুযায়ী কোনো পরিবর্তন আনেনি নির্বাচন কমিশন। আমি রংপুরবাসীকে স্যালুট জানাই। তারা ঠিকই বুঝেছেন এই নির্বাচন কমিশন ও সরকারের আওতায় সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই তারা ভোটকেন্দ্রে যাননি।

রিটা রহমান বলেন, যেখানে বিকেল পর্যন্ত শতকরা ১০ থেকে ১২ ভাগ ভোট পড়েছে কেন্দ্রগুলোতে, সেখানে কীভাবে ২১ ভাগ ভোট কাস্ট দেখানো হলো। এটা থেকেই কারচুপির প্রমাণ মেলে। আমি এবং আমার দল জেলা ও মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে এই নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করছি। ভোট কারচুপির ব্যাপারে আমাদের আন্দোলন কর্মসূচি দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক রইচ আহমেদ, মহানগর বিএনপির সহসভাপতি সামসুজ্জামান সামু, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু, জেলা যুবদলের সভাপতি নাজমুল আলম নাজু, বিএনপি নেতা আব্দুস সালাম, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মনিরুজ্জামান হিযবুল, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া ইসলাম জীমসহ অন্যরা।

পরাজিত প্রার্থীদের সঙ্গে দেখা করলেন সাদ এরশাদ: রোববার দুপুরে এরশাদের পৈতৃক নিবাস স্কাই ভিউ বাসভবনে সাদ এরশাদের চাচাতো ভাই উপনির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফের সঙ্গে দেখা করেন। এ সময় তার সঙ্গে কুশল বিনিময় করে রংপুরের উন্নয়নের সহযোগিতা চান তিনি। আসিফও ভেদাভেদ ভুলে পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। এরপর সাদ এরশাদ নগরীর রাধাবল্লভে বিএনপির প্রার্থী রিটার রহমানের যাদু নিবাস বাসভবনে যান। সেখানে রিটা রহমান না থাকায় মোবাইল ফোনে কুশল বিনিময় করেন সাদ এরশাদ।