ইউএনও'র ওপর হামলা: ঘোড়াঘাট থানার ওসিকে প্রত্যাহার

প্রকাশ: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০   

দিনাজপুর প্রতিনিধি ও হিলি সংবাদদাতা

ওসি আমিরুল ইসলাম

ওসি আমিরুল ইসলাম

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তার বাবার ওপর হামলার ঘটনায় ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন।

তিনি জানান, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে তাকে প্রত্যাহার করে দিনাজপুর পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়। তার স্থলে রংপুর সদর থানার পরিদর্শক আজিম উদ্দিনকে পদোন্নতি দিয়ে ঘোড়াঘাট থানায় নতুন ওসি'র দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় রিমান্ড থাকা দুই আসামি নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমারকে শুক্রবার দুপুরের পরে আদালতে তোলা হবে। দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের ওসি ইমাম জাফর জানান, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছেন। তিনি এলে জুমার নামাজের পর ওই দুই আসামিকে আদালতে তোলা হবে। 

গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ঘোরাঘাটে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে ঢুকে তার ও তার বাবার ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। গুরুতর আহত অবস্থায় ৩ সেপ্টেম্বর দুপুরে ইউএনও ওয়াহিদাকে বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টার ঢাকায় নেওয়া হয়। পরে রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে রাত সোয়া ৯টা থেকে সোয়া ১১টা পর্যন্ত তার মাথায় অস্ত্রোপচার করা হয়। ৱ

এ হামলার ঘটনায় ৩ সেপ্টেম্বর রাতেই ইউএনও ওয়াহিদার বড় ভাই শেখ ফরিদ উদ্দিন বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। গত ৫ সেপ্টেম্বর এই মামলার দুই আসামি নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমারের ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ওই দিন রাতেই তাদের নিজ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে ডিবি। এদিকে মামলার প্রধান অভিযুক্ত আসাদুল ইসলামকে গত ৬ সেপ্টেম্বর আদালতের মাধ্যমে ৭ দিনের রিমান্ডে নেয় ডিবি পুলিশ। শনিবার তার রিমান্ড শেষ হয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে।