বিবাহ বিচ্ছেদের বিচিত্র যত কারণ!

প্রকাশ: ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

গোটা বিশ্বেই বিবাহ বিচ্ছেদের সংখ্যা বাড়ছে। কেউ সামাজিক, কেউ বা পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ করছেন। তবে বিচিত্র কারণেও কেউ কেউ বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করছেন। গোটা বিশ্বে ঘটে যাওয়া এমন বিচিত্র কিছু বিবাহ বিচ্ছেদের খবর  দেওয়া হলো।

২০১৯ সালের আগস্ট মাসে সংযুক্ত আরব আমিরাতের এক নারী স্বামীর অতিরিক্ত ভালোবাসায় অতিষ্ঠ হয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন। তার অভিযোগ ছিল, স্বামী বাড়ির সব কাজে তাকে সাহায্য করেন। কখনও তার সঙ্গে ঝগড়া বা রাগারাগি করেন না। তিনি স্বামীকে রাগাতে চেষ্টা করলে তিনি আরও বেশি তার (স্ত্রী) যত্ন নেন, উপহার দেন। স্বামীর অতিরিক্ত ভালোবাসা সহ্য করতে না পেরে স্ত্রী বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন।

তাইওয়ানের এক নারী তার স্বামীকে মোবাইলে বেশ কয়েকবার টেক্সট করেন। কিন্তু তার স্বামী মেসেজগুলোর কোনো উত্তর দেননি। এরপর যখন ওই স্ত্রী তার স্বামীকে হাসপাতালে আছেন বলে টেক্সট করে জানান তখনও তার স্বামী কোনো উত্তর দেননি। যদিও মেসেজগুলো পড়া হয়েছে এমন চিহ্ন দেখাচ্ছিল। স্বামীর এত অবহেলা মেনে নিতে পারেননি ওই স্ত্রী। এ কারণে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন তিনি। 

দুবাইয়ের এক দম্পতি বিয়ের কয়েকদিন পর সমুদ্রসৈকতে বেড়াতে যান। কিন্তু সমুদ্রস্নানের পরই স্বামী বেঁকে বসেন। তিনি তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ করেন। তিনি জানান, পানিতে নামার পরই তার স্ত্রীর মুখ থেকে ওয়াটারপ্রুফ সব মেকআপ ধুয়ে যায়। তখনই প্রথমবার তিনি স্ত্রীকে মেকআপ ছাড়া দেখেন। আর তাতেই ক্ষেপে গিয়ে স্ত্রীর বিরুদ্ধে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন। 

নির্বাচনের সময় আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোট দেওয়ার কারণে ৭৩ বছর বয়সী এক আমেরিকান নারী তার স্বামীর বিরুদ্ধে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন। 

২০১২ সালে আরেকটি অদ্ভুত বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন জমা পড়ে। স্ত্রীর অভিযোগ ছিল, তার স্বামী অতিরিক্ত কথা বলেন এবং কোনো কথা গোপন রাখতে পারেন না। ওই স্ত্রী জানিয়েছিলেন, তার স্বামী তাদের সমস্যা, গোপন কথা নিয়ে সব সময় নিজের বন্ধু-বান্ধব এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলাপ করতন। 

সৌদি আরবের এক ব্যক্তি তার নববধূকে তালাক দেন তাদের বিয়ের ছবি সামাজিক মাধ্যমে দেওয়ার জন্য। ওই কনের ভাই জানান, বিয়ের আগে ওই বধূ বিয়ের পর সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করতে পারবেন না এমন চুক্তিতে রাজি হন। কিন্তু চুক্তি ভেঙে ছবি পোস্ট করার কারণে স্বামী তাকে তালাক দেন। 

বিয়ের দুই মাস পরও স্বামী গোসল করতে না চাওয়ায় এক মিশরীয় নারী বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন। ওই স্বামী জানান, ত্বকের সমস্যার কারণে তিনি গোসল করেন না। কারণ গায়ে পানি ঢাললেই তার অ্যালার্জি বাড়ে। 

বিয়ের ৭০ বছর পর স্ত্রীর পুরনো প্রেমের চিঠি পাওয়ায় ৯৯ বছর বয়সী এক ইতালিয়ান ব্যক্তি বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন। ওই স্ত্রী ক্ষমা চাইলেও স্বামী তার সিদ্ধান্তে অটল থাকেন। তারাই বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ ডিভোর্স দেওয়া দম্পতি।

আমেরিকান এক নারী তার স্বামীর বিরুদ্ধে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন। কারণ তার স্বামী সামাজিক মাধ্যমে নিজেদের বৈবাহিক অবস্থা পরিবর্তন করে বিবাহিত লিখেছিলেন। সূত্র : স্টার ইনসাইডার