দূরত্ব ঘুচিয়ে প্রিয়জনের সান্নিধ্যে থাকার উপায়

প্রকাশ: ১৯ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ইচ্ছা না থাকা সত্ত্বেও চাকরি, পড়ালেখা কিংবা অন্য কোনো কারণে সব সময় প্রিয় মানুষটির কাছাকাছি থাকা সম্ভব হয় না। তবে ইচ্ছা করলে ভৌগলিক দূরত্ব ঘুচিয়ে মানসিকভাবে সব সময়ই প্রিয় মানুষটির সান্নিধ্যে থাকা সম্ভব। অবশ্য এজন্য কিছু বিষয় মেনে করতে হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার

যখন ইন্টারনেট ছিল না তখন ভালোবাসার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করা অনেক কঠিন ছিল। কিন্তু ইন্টারনেটের এই যুগে সেটা অনেক সহজ হয়ে গেছে। ভালোবাসার মানুষ যত দূরে থাকুক না কেন, সোশ্যাল মিডিয়ার (স্কাইপ, হোয়াটস অ্যাপ, ইমো, ভাইবার, জি-টক ও অন্যান্য) মাধ্যমে তার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখুন। শুধু যোগাযোগ করলেই হবে না, দুজনকেই অনুভব করতে হবে যে আপনারা একসঙ্গে আছেন।

ব্যস্ততার মাঝেও সময় বের করতে হবে

আপনি কিংবা আপনার সঙ্গী কাজ, পড়ালেখা কিংবা সংসার-বাচ্চা নিয়ে যতই ব্যস্ত থাকুন না কেন, ভালোবাসার মানুষের জন্য সময় বের করে নিতে হবে। শত ব্যস্ততার মাঝে নিজের যত্ন নিতে হবে এবং সঙ্গী সব কিছু ঠিকমতো করছে কিনা তারও খোঁজ রাখতে হবে। 

বিশ্বাস রাখতে হবে

দূরে থাকার কারণে শারীরিকভাবে সঙ্গীর কাছে থাকা যায় না। এজন্য কেউ কেউ সম্পর্কে নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন। যোগাযোগের অভাব হলে অনেক সময় একজন আরেকজনকে সন্দেহ করেন। কিন্তু এই ভৌতিক চিন্তা সম্পর্ককে নষ্ট করে দেয়। সঙ্গীকে কখনো সন্দেহ করা যাবে না। একে অপরের প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে। 

পরিবর্তন মেনে নেওয়ার মানসিকতা থাকতে হবে

নতুন জায়গায় যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অনেক নতুন নতুন বিষয়ের সম্মুখীন হতে হয়। কিংবা সঙ্গী দূরে যাওয়ায় নিজেকে একা মনে হতে পারে। এই একা থাকার বিষয়টকে মেনে নেওয়ার মানসিকতা থাকতে হবে।

ছোট ছোট উপহার সম্পর্ককে বড় করে তোলে

ভালোবাসার মানুষকে চমকে দিতে কে না চায়। সঙ্গীকে অবাক করার জন্য দামি উপহার দিতে হবে এমন কোনো কথা নেই। ছোট ছোট উপহারও সম্পর্ককে বড় করে তোলে। ফুল, কার্ড কিংবা অন্যান্য ছোট ছোট উপহার সম্পর্ককে বড় করে তোলে। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া