বিয়ে আর সংসার জীবন যে বড়ই জটিল তার আর বলার অপেক্ষা রাখে না। একটা সময়ের পর সকলেই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।আর বিয়ে, বিয়ের সাজ, নিয়ম-রীতি এসব নিয়ে অনেকের মধ্যেই বেশ উন্মাদনা কাজ করে। তবে বিয়ের আগে সব যুগলই অনেক কিছু ভেবে থাকেন।

এই যেমন বাড়ি থেকে লুকিয়ে ঘুরতে যেতে, বান্ধবীর সঙ্গে নাইট আউট করা নিয়ে আর কোনও চাপ রইল না, ইচ্ছেমতো ঘোরা খাওয়া ঠিক যেন স্বাধীন জীবন। এছাড়াও  যৌনজীবনও খুব গুরুত্বপূর্ণ। ফলে তা নিয়ে নানা ভাবনা থাকা স্বাভাবিক। 

এদিকে বিয়ের পর যৌনজীবন নিয়ে কাপলদের মধ্যেও নানা রকম মিথ বা কল্পনা রয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা, অর্থাৎ বিবাহিতদের দাবি এসব সবই মিথ্যে। তাহলে কী সেইসব মিথ? জেনে নেওয়া যাক-

বিয়ে ও ফুলশয্যা উত্তেজনায় ভরপুর?

বিয়ে নিয়ে একটা উত্তেজনা তো থাকেই। বিয়ের আগে থেকেই শপিং, প্ল্যানিং এসব তো থাকেই। এর পাশাপাশি বিয়ের দিন থেকে ফুলশয্যা বেশ উত্তেজনাতেই কাটে। সেই সঙ্গে মজা, আনন্দ এসব তো আছেই। তবে সকলেই যেমন ভাবেন ফুলশয্যা মানেই অনেক কিছু, বিবাহিতরা বলছেন উল্টো। তাদের মতে, সবাই এত ক্লান্ত থাকেন যে, শেষপর্যন্ত রাতে ঘুমিয়েই পড়েন। 

বিয়ের পর একে অপরকে আরো ভালোভাবে চেনা যায়?

বিয়ের পরই একে অপরকে অনেক বেশি করে চেনা যায় -এমন কথা প্রচলিত আছে। বিষয়টি জাদুর মতো নয়। পারস্পরিক কথাবার্তার মধ্য দিয়ে বোঝাপড়া বা মনের মিল তৈরি না হলে এরকম 'ভালো চেনা' সম্ভব হয় না। অনেকের ক্ষেত্রে এমনও হয়েছে, বিছানাতে সময় দিতেও অনাগ্রহ তৈরি হয়েছে। তাই বিয়ের পর স্বামী স্ত্রী দুজনেই গিয়েছেন ম্যারেজ কাউন্সিলারের কাছে। কারণ মনের মিল হয়নি। তাই বিয়ের পর একসঙ্গে সময় কাটানোয় বেশি মন দিন, তাতেই গড়ে উঠবে অন্তরঙ্গতা, বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

একে অপরকে সময় দিন

অনেকেরই অভিযোগ, বিয়ের পর স্বামী বা স্ত্রী মোটেই একে অপরকে সময় দিতে পারছেন না। বিয়ের আগে বরং দুজনে একসঙ্গে অনেকটা সময় কাটাতে পারতেন। এছাড়াও বিয়ের পর সবারই দায়িত্ব বাড়ে। সেই সঙ্গে ব্যস্ততাও। ফলে দূরত্ব বাড়ে।

যৌনতাও একঘেঁয়ে লাগে

প্রথম প্রথম অনেকের মনে হয়, এবার বুঝি জীবন থাকবে যৌন উত্তেজনায় ভরপুর । কিন্তু রাতের পর রাত এক বিছানা, এক বাড়িও কখনও ক্লান্তিকর হয়ে ওঠে। সপ্তাহে বড়জোর দুবার তারা মিলিত হন। এমনটাই মত তাদের। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যৌন জীবনের আনন্দ নিজেকেই খুঁজে নিতে হবে। এভাবে চলতে থাকলে সম্পর্কে অশান্তি আসতে বাধ্য।

ইচ্ছে কমে যায়

সংসার জীবনে প্রবেশ করলে দুজনেরই যৌন ইচ্ছা কমে যায়। বিয়ের আগে যা কিছু পরিকল্পনা, তা বাস্তবায়িত করতে একটু আলসেমি আসে! এছাড়াও দুজনের সময় নিয়েও একটু সমস্যা থেকেই যায়। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কীভাবে নিজেদের যৌনজীবনকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলা যাবে তা নিজেদেরই ভাবতে হবে।

মন্তব্য করুন