কথায় আছে, দুই-তিনজন মেয়ে একসঙ্গে হলে পরচর্চা-পরনিন্দা করার বিষয়ের অভাব হয় না। কিন্তু গবেষণা বলছে ভিন্ন কথা। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, মেয়েদের থেকে অনেক বেশি পরচর্চা করতে ভালোবাসেন ছেলেরা। কাছের বন্ধুরা এক হলেই ছেলেরা মাতেন গসিপ বা পরচর্চায়। স্ত্রী-বউ-প্রেমিকাকে নিয়ে গসিপ করতে তারা বেশ ভালোই পারেন। সেই গবেষণায় এটাও দেখা গেছে, শুধু শাড়ি-গয়না নিয়ে মেয়েরাই আলোচনা করেন না, সাংসারির কূটকাচালি থেকে মার্কেটিং সবই কিন্তু খুঁটিয়ে দেখেন ছেলেরা। আর ভাই-ভাই এক হলেই শুরু হয় আলোচনা।

কারা বেশি পরচর্চা করেন তা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একটা জরিপ চালানো হয়। এতে ২৬৯ নারী আর ১৯৮ পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। গবেষণার জন্য তাদের যাবতীয় কথোপকথন রেকর্ড করা হয়।  ১৮-৫৮ বছর বয়সীরাই ওই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। ১২ দিন ধরে সবার কথোপকথন রেকর্ড করা হয়। এরপর সেই অডিও ক্লিপ নিয়ে সমীক্ষা করেন বিশেষজ্ঞরা। পুরুষ ও নারীদের আলোচনায় কী কী ধরনের বিষয় নিয়ে পরনিন্দা-পরচর্চা করা হয় তার একটা তালিকাও তৈরি করা হয়। সেই তালিকার শীর্ষে ছিল তারকাদের নিয়ে পরচর্চা। সাধারণ কথাবার্তাও ছিল তাতে। তবে খুব বেশি নেতিবাচক মন্তব্য পাওয়া যায়নি কারও আলাপেই।

ওই গবেষণায় দেখা গেছে, নারীরা দিনে ৫২ মিনিট সময় কাটান পরচর্চা করে। আর ছেলেরা সময় বুঝে। পছন্দের বন্ধুরা একত্রিত না হলে গসিপ করতে পারেন না ছেলেরা। কিন্তু মেয়েরা সেদিকে এগিয়ে। মাত্র দুই মিনিটের আলাপ এরকম কারোর সঙ্গেও তারা গসিপ করতে পারেন।

সেই গবেষণায় আরও দেখা গেছে, মেয়েরা তারকাদের নিয়ে গসিপ পছন্দ করলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন পরিচিতজনেরা। ছেলেদের ক্ষেত্রেও তাই। পরিচিত লোকজনদের নিয়েই পরনিন্দা-পরচর্চা করতে পছন্দ করেন তারা। চেনা মানুষদের বাইরে বাকিদের নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামান না তারা।

গসিপ নিয়ে গবেষণা করতে গিয়ে বিশেষজ্ঞরা দেখেন, শিক্ষিত মহলে গসিপের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। মানুষ যত বেশি শিক্ষিত হয়েছেন ততই পরচর্চা-নিন্দায় পারদর্শী হয়েছেন। তবে পরচর্চা যে সব মহলেই গ্রহণযোগ্য এটাও স্বীকার করেছেন তারা।

মন্তব্য করুন