বিষাদিত ভোর

ভোরের আলো ফোটে স্নিগ্ধতার পরশ মেখে- 
১৫ আগস্ট ১৯৭৫ এ কেমন ভোর! 
বিষাদিত স্মৃতি, শুধুই তাড়া করে 
জাতির কপালে কলঙ্কের তিলক এঁটে দেয়।
পিতাকে হত্যা করা হয়েছে সপরিবারে! 
শুধু কি তাই? পৃথিবীর আলো দেখার 
সুযোগ পেল না মায়ের জঠরে থাকা শিশু!
ঘাতকের হাত কাঁপেনি একটুও-
ছোট শিশু রাসেল, সুকান্ত বাবু 
কী ছিল তাদের অপরাধ? 
বেতারে ঘাতকের দাম্ভিক ঘোষণা,
সারা বাংলাকে এতিম করে দেয়ার ঘৃণ্য উল্লাস! 
পুত-পবিত্র বেদনার লেশমাত্র চিহ্ন নেই 
পিতার দেহখানা পড়ে আছে সিঁড়িতে।
সফেদ সাদা পাঞ্জাবি, বুকে বুলেটের ক্ষত 
মমতায় ভরা মুখখানা পানে চেয়ে দেখো-
সৌম্য-শান্ত পিতা যেন ঘুমিয়ে আছে
আমাদের নতুন করে জাগাতে।

জাগো বাঙালি, জেগে ওঠো 
নতুন করে সোনার বাংলা গড়ো।

অন্তরে বঙ্গবন্ধু

ঘাতকের বুলেট বিদীর্ণ করেছে 
নিশ্চিহ্ন করতে পারেনি, পিতা তোমাকে 
তুমি আছো মিশে বাংলার আকাশে-বাতাসে 
কোটি কোটি মানুষের অন্তরে। 
যারা তোমাকে হত্যা করেছে 
ধিক্কৃত হয়েছে আজ তারা 
বাংলার মাটিতে হয়েছে বিচার 
ফাঁসিতে ঝুলেছে তারা। 
শেষশয়ানে শুয়ে আছো পিতা
রয়েছো অমর হয়েছে, 
বাংলার মাটি হয়েছে ধন্য 
তোমার পরশ পেয়ে।

হৃদয়ে তোমায় লালন করে 
গড়বো আমরা দেশ 
এক দিন এই বাংলা হবে 
তোমার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ।

বিষয় : বঙ্গবন্ধু জাতীয় শোক দিবস

মন্তব্য করুন