বঙ্গবন্ধুর সাংস্কৃতিক দর্শন নতুন প্রজন্মের সামনে উপস্থাপন করতে সমন্বিত পরিকল্পনা প্রণয়ণে গুরুত্বারোপ করেছেন সংস্কৃতিজনরা। 

শনিবার রাত ১০টায় অনলাইন প্লাটফর্ম বাংলাদেশ লাইভের শোক দিবসের এক ওয়েবিনারে এমন মন্তব্য করেন তারা।

‘সাংস্কৃতিক চেতনায় বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক এই বিশেষ আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল চৌধুরী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের কাছে আমার আবেদন, বঙ্গবন্ধুর সাংস্কৃতিক দর্শন নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে একটা সিস্টেমেটিক পরিকল্পনা হাতে নেওয়া। দলের কর্মীদের এ নিয়ে উদ্বুদ্ধ করতে নিয়মিত সভা বা সেশনের আয়োজন করা জরুরি।’

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ছিলেন আগাগোড়া সংস্কৃতিপ্রেমী একজন মানুষ। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক মুক্তিতেই নয়, তিনি এদেশের ভাষা ও সংস্কৃতির মুক্তি সংগ্রামেও অবিস্মরণীয় ভূমিকা রেখেছেন। তার সংগ্রামের মধ্য দিয়েই ভাষা, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকেন্দ্রিক বাঙালি জাতীয়তাবাদের পূর্ণাঙ্গ ভিত্তি রচিত হয়েছিল। তার রাজনৈতিক দর্শনের পাশাপাশি সাংস্কৃতিক চেতনাকেও নতুন প্রজন্মের কাছে পরিকল্পিত ভাবে তুলে ধরা দরকার।’ 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলামের সঞ্চালনায় লাইভে সংযুক্ত ছিলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠসৈনিক রফিকুল আলম, সংগীত পরিচালক নকীব খান, সংগীতশিল্পী বাপ্পা মজুমদার, সামিনা চৌধুরী ও সাব্বির জামান।