এবার ঢাকায় মিলছে ‘দ্য ব্যালাড অব আয়েশা’

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০১৮     আপডেট: ২১ জুলাই ২০১৮      

অনলাইন ডেস্ক

কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের ‘আয়েশামঙ্গল’ উপন্যাসের ইংরেজি অনুবাদ ‘দ্য ব্যালাড অব আয়েশা’ প্রকাশিত হয়েছে সম্প্রতি। এটি অনুবাদ করেছেন সাংবাদিক ইনাম আহমেদ। বইটি ভারতের বইয়ের দোকানগুলোসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে পাওয়া যাচ্ছে। 

আর কয়েক দিন ধরে ঢাকায় ‘বাতিঘর’, ‘প্রথমা’, ‘বেঙ্গল বই’ এবং ‘পাঠকসমাবেশ’ পাওয়া যাচ্ছে ‘দ্য ব্যালাড অব আয়েশা’। বাতিঘর থেকে ০১৯৭৩৩০৪৩৪৪ ও ০২৯৬৩৫৩৩৯ নম্বরে ফোন করে ঘরে বসেও বইটি অর্ডার করা যাবে।

গত ২৫ মে বিশ্বখ্যাত প্রকাশনা সংস্থা হারপার কলিন্স বইটি প্রকাশ করে। এরপর থেকে অ্যামাজনে ‘দ্য ব্যালাড অব আয়েশা’র কিন্ডল এডিশন পাওয়া যায়। এর আগে পশ্চিমা দেশগুলো থেকে অনলাইন প্রি-অর্ডার নেওয়া হয়। তাতেও ভালো সাড়া মিলেছে। এরই মধ্যে লেখক-সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে 'আয়েশামঙ্গল'-এর এ অনুবাদ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনিসুল হক সমকালকে জানান, বিভিন্ন দেশে প্রধানত প্রবাসী বাংলাদেশিরা কিনছেন বইটি। অনেকে নিজে কেনার পর তাদের বন্ধুদেরও কিনতে বলছেন। এরই মধ্যে ঢাকাতেও ভালো সাড়া পাওয়া গেছে। আশা করি, আরো সাড়া পড়ে যাবে।

বইটির প্রেক্ষাপট ১৯৭৭ সালের ২ অক্টোবর ঘটে যাওয়া এক রহস্যময় সামরিক অভ্যুত্থান নিয়ে। ওই রাতে উপন্যাসটির চরিত্র বিমানবাহিনীর সদস্য জয়নাল ঘুমিয়ে ছিলেন স্ত্রী আয়েশার পাশে। পরদিন সকালে কাজে যান জয়নাল। কিন্তু রোজকার মতো ফিরে আসা হয় না তার। এরপর শুরু হয় এক বাঙালি নারীরসংগ্রাম, স্বামীর অন্বেষণ। দু’দুটো দুগ্ধপোষ্য সন্তান নিয়ে আয়েশা কোথায় যাবেন? এরপর কেটে যায় কুড়িটা বছর। একদিন খবরের কাগজে ছাপা হয় সেই সব দিনের কাহিনী, শত শত বিমান সেনাকে ফাঁসিতে ঝোলানোর বিবরণ। তবে কি কোনো খবর পাওয়া যাবে নিখোঁজ স্বামীর! আয়েশা আবার ফিরে আসে ঢাকায়। 

এভাবেই কাহিনি এগুতে থাকে রুদ্ধশ্বাস এ উপন্যাসের।