পূর্ব লন্ডনে কবি মুজিব ইরমের কবিতা পাঠ ও আলোচনা

প্রকাশ: ০২ জুলাই ২০১৮     আপডেট: ০২ জুলাই ২০১৮      

অনলাইন ডেস্ক

অনুষ্ঠানে সপাঠে-সকথনে অংশ নেন মুজিব ইরম

পূর্ব লন্ডনের শাহ কমিউনিটি সেন্টারে কবি মুজিব ইরমের কবিতা পাঠ, আলোচনা ও আবৃত্তি অনুষ্ঠান হয়েছে। গত ২৪ জুন ‘কবিকণ্ঠ’ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

কবি হামিদ মোহাম্মদের উপস্থাপনায় আলোচনায় অংশ নেন- কবি মাশুক ইবনে আনিস, কবি ফারুক আহমেদ রনি, কবি জফির সেতু, কবি টি এম আহমেদ কায়সার, কবি মিল্টন রহমান, লেখক সারওয়ার ই আলম প্রমুখ। কবিতা পাঠে অংশ নেন আবৃত্তিশিল্পী পপি শাহনাজ, অজন্তা দেব রায়, মোস্তাফা জামান নিপুন। মুজিব ইরম রচিত পুঁথিপাঠে অংশ নেন কবি মুজিবুল হক মনি। এছাড়া সপাঠ ও কথনে অংশ নেন কবি মুজিব ইরম।

অতিথি আলোচক সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কবি জফির সেতু বলেন, মধ্যযুগে কবি আলাওল আরকান রাজ্যে যে বাংলাসাহিত্যের বিকাশ সাধন করেছিলেন, এখন বিলেতে বসে কবি মুজিব ইরম একইভাবে বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করে যাচ্ছেন। তার ভিন্নমাত্রার এ কাজ অবশ্যই ইতিহাসে অন্তর্ভুক্ত থাকবে। 

আলোচনায় কবি মিল্টন রহমান বলেন, মুজিব ইরম আত্ম-অনুসন্ধানের যে নতুন অন্তর্জাগতিকতা নির্মাণ করেছেন তা দেশকাল পেরিয়ে আর্ন্তজাতিক দ্যোতনা সৃষ্টি করেছে। তার কবিতায়  ‘হোমসিকনেস’ স্বদেশপ্রেমকে উসকে দিতে পেরেছে। 

কবি টি এম আহমেদ কায়সার বলেন, প্রথা ভাঙার যে তর্কবিতর্ক নব্বইয়ের লিটলম্যাগ আন্দোলনে আমরা করেছি, সেই বাঁকবদলের সফল কবি মুজিব ইরম। কবিতার শরীর নির্মাণ কৌশল বদলে দেওয়া, অন্তর্জাগতিক কাব্যস্পর্শকে পাঠকের মনে স্পন্দিত করা, নতুনভাবে বলা- সবই মুজিব ইরমকে স্বার্থক জায়গায় পৌঁছে দিয়েছে তার কবিতা। যাকে ‘বিদ্রোহ’ বা চ্যালেঞ্জ বলতে হবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মুজিব ইরমকে ফুল দিয়ে বরণের পর পাঠ করা হয় কবি বৃত্তান্ত। এতে কবির জীবন ও সাহিত্যকর্মের বিবরণ পাঠ করেন কবি ইকবাল হোসেন বুলবুল। সব শেষে কবি মুজিব ইরম সপাঠে-সকথনে অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে ভিডিও চিত্রে কবি মুজিব ইরমের জীবন ও কর্ম প্রদর্শন করা হয়। তথ্য চিত্রটি নির্মাণ করেন কবি আনোয়ারুল ইসলাম অভি। অনুষ্ঠনাকে কেন্দ্র করে ‘কবিকণ্ঠ’ কুলাচার্য মুজিব ইরম সংখ্যা প্রকাশ করে।

উল্লেখ্য, কবি মুজিব ইরম ২০১৭ সালে বাংলা একাডেমি সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ পুরস্কার পেয়েছেন। এছাড়া তিনি 'মুজিব ইরম ভনে শোনে কাব্যবান' কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন বাংলা একাডেমি তরুণ লেখক প্রকল্প পুরস্কার-১৯৯৬। এছাড়াও পেয়েছেন সংহতি সাহিত্য পদক-২০০৯, কবি দিলওয়ার সাহিত্য পুরস্কার-২০১৪। কবিবংশ কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন ব্র্যাক ব্যাংক-সমকাল সাহিত্য পুরস্কার-২০১৪। শ্রীহট্টকীর্তন কাব্যগ্রন্থের জন্য পেয়েছেন সিটি-আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার-২০১৬। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।