তিনটি সাহিত্য পুরস্কারের জন্য এ বছর লেখক রফিক কায়সার, শাহরিয়ার কবির ও কবি জুলফিকার মতিনের নাম ঘোষণা করেছে বাংলা একাডেমি। এদের মধ্যে রফিক কায়সার পাচ্ছেন 'সাহিত্যিক মোহম্মদ বরকতুল্লাহ প্রবন্ধ সাহিত্য পুরস্কার'। 'কবীর চৌধুরী শিশুসাহিত্য পুরস্কার' এর জন্য শাহরিয়ার কবিরকে মনোনীত করা হয়েছে। আর জুলফিকার মতিন পাচ্ছেন 'সা'দত আলি আখন্দ সাহিত্য পুরস্কার'।

আগামী ২৬শে ডিসেম্বর বাংলা একাডেমির সাধারণ পরিষদের ৪৩তম বার্ষিক সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে এ তিনটি পুরস্কার ওেয়া হবে বলে রোববার একাডেমির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

রফিক কায়সারের সাহিত্য পদচারণা শুরু সত্তরের দশকে। তার লেখা উপন্যাসগুলোর মধ্যে রয়েছে 'তিন পুরুষের রাজনীতি', 'কমল পুরাণ' ও প্রবন্ধগ্রন্থ 'আপনি তুমি রইলে দূরে', 'তোমার আকাশ তোমার বাতাস', 'রবীন্দ্রনাথ: প্রতীচ্যের দেশে-দেশে' ইত্যাদি। তার লেখায় ভারত উপমহাদেশের রাজনীতি, সাহিত্য ও সমাজের চিত্র উঠে এসেছে।

ষাটের দশক থেকে কবি জুলফিকার মতিনের সাহিত্য জগতে আগমন ষাটের দশকে। এই বীর মুক্তিযোদ্ধার লেখায় বাংলাদেশের স্বাধীনতা, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক আন্দোলনকে তুলে ধরেছেন শব্দের মালায়। জুলফিকার মতিনের মননশীল প্রবন্ধ সাহিত্য তাকে তার সমসাময়িক লেখকদের চেয়ে অনন্য করে তুলেছে।

একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির সত্তরের দশক থেকে শিশুদের জন্য লিখছেন গল্প, উপন্যাস। তার উল্লেখযোগ্য বই- 'নুলিয়াছড়ির সোনার পাহাড়', 'একাত্তরের যীশু', 'সীমান্তে সংঘাত', 'হানাবাড়ির রহস্য', 'নিশির ডাক', লুসাই পাহাড়ের শয়তান', 'মরু শয়তান', 'একাত্তরের পথের ধারে', 'জাহানারা ইমামের শেষ দিনগু ইত্যাদি।