ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টায় শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ চলবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। আট দফা নির্বাচনের প্রথমটিতে আজ মঙ্গলমহল ও মেদিনীপুরের ৩০টি আসনে প্রার্থীদের ভাগ্য পরীক্ষা হবে।

অন্যদিকে  এ নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে বদ্ধপরিকর নির্বাচন কমিশন কার্যত আধাসামরিক বাহিনী দিয়ে কেন্দ্রগুলোকে মুড়ে ফেলেছে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শুধু এই ৩০টি কেন্দ্রের বুথেই আছে প্রায় সাতশ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী।

পশ্চিমবঙ্গের প্রথম দফার ভোটে পাঁচ জেলার বাঁকুড়ায় আছে ৮৩ কোম্পানি বাহিনী, ঝাড়গ্রামে ১৪৪, পশ্চিম মেদিনীপুরে ১২৪, পূর্ব মেদিনীপুরে ১৪৮ আর পুরুলিয়ায় ১৮৫ কোম্পানি বাহিনী।

এবারের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে এ রাজ্যে ৩১ শতাংশ ভোটকেন্দ্র বাড়ানো হয়েছে। সব মিলিয়ে রাজ্যে এক লাখ এক হাজার ৯১৬টি ভোটকেন্দ্র থাকছে। মোট ৮ দফার নির্বাচনের ফল প্রকাশ হবে ২ মে।

এর আগে প্রথম দফার নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার ভোটকর্মীরা বুথে বুথে পৌঁছেছেন। তাদের দেওয়া হয়েছে ভোটিং মেশিন। সেই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে দেওয়া হয়েছে একটি বিশেষ কিট। তাতে স্যানিটাইজার, মাস্ক, পিপিই দেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীও টহল দিতে শুরু করেছে এ দিন সকাল থেকে। প্রথম দফাতেই হাইভোল্টেজ বেশ কয়েকটি কেন্দ্র রয়েছে।

প্রথম দফার ভোটে তারকা প্রার্থী জুন মালিয়া। মেদিনীপুর কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তিনি। লোকসভা ভোটে এই কেন্দ্রে বিজেপি অনেকটা এগিয়ে ছিল। তাই এ আসন নিশ্চিত করতে টালিউড অভিনেত্রী জুন মালিয়াকে প্রার্থী করে চমক দিয়েছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল। তারকা প্রার্থী দেখে ভোটবাক্স আগের মতোই ভরতে পারে- এমনই আশায় রয়েছে শাসক দল। এ দফার ভোটে তৃণমূলের আরেক তারকা প্রার্থী বীরবাহা হাঁসদা। সাঁওতালি ছবির জনপ্রিয় এই তারকা লড়ছেন ঝাড়গ্রাম থেকে। এর আগে ঝাড়খন্ডে লড়েছিলেন তিনি। তবে সে সময় জয় পাননি তিনি। বিজেপির দাপটে থাকা ঝাড়গ্রামে জয় পাওয়া বড় চ্যালেঞ্জ হবে বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

দীর্ঘদিন জেলে থাকার পর ফের ময়দানে সিপিএম নেতা সুশান্ত ঘোষ। এবার গড়বেতা নয়, শালবনি থেকে লড়ছেন তিনি। তার উল্টোদিকে রয়েছেন তৃণমূলের শ্রীকান্ত মাহাতো। টানা দু'বার শ্রীকান্ত এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছেন। আট বছর পর গড়বেতায় প্রার্থী হয়েছেন প্রভাবশালী এই সিপিএম নেতা। এরই মধ্যে আবার শালবনিতে বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে। এ নিয়ে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। সব মিলিয়ে রাজনৈতিক উত্তেজনার মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের প্রথম দফার ভোট।

এ নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোট গ্রহণ আগামী ১ এপ্রিল, তৃতীয় দফার ৬ এপ্রিল, চতুর্থ দফা ১০ এপ্রিল, পঞ্চম দফার ১৭ এপ্রিল, ষষ্ঠ দফার ২২ এপ্রিল, সপ্তম দফার ভোট ২৬ এপ্রিল ও অষ্টম দফার ভোট গ্রহণ হবে ২৯ এপ্রিল।

এদিকে, শুক্রবার পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরে নির্বাচনী সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করে বলেন, রাজ্যে বহিরাগত গুন্ডা ঢুকিয়ে ভোট করাতে চাইছে বিজেপি। তিনি আরও বলেন, 'আমি বারবার বলেছি, বিজেপি বহিরাগত গুন্ডাদের নিয়ে এসে ভোট করাবে। বৃহস্পতিবার তার প্রমাণ পাওয়া গেছে। খবর এসেছে, কাঁথি বাসস্ট্যান্ড রাত ১১টায় ৩০ জন উত্তর প্রদেশের গুন্ডা হাতেনাতে অস্ত্রসহ ধরা পড়েছে। কাঁথিতে গুন্ডা ঢুকিয়েছে, নন্দীগ্রামে ঢুকিয়েছে।'

তৃণমূল নেত্রী আরও বলেন, '২৮ মার্চ থেকে থেকে ৫ দিন থাকব নন্দীগ্রামে। সব লক্ষ্য রাখব। ভোট করে তারপর যাবো।'