ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দেশ, দেশের প্রতিষ্ঠান ও গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে পেগাসাস স্পাইওয়্যার কাজে লাগিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তার মতে, মোদী-শাহরা যা করেছেন, ‘তা এক ধরনের রাষ্ট্রদ্রোহ’। একইসঙ্গে রাহুলের অভিযোগ, তার সব ফোনেই আড়িপাতা হয়েছে।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়েছে, পেগাসাস-বিতর্কে উত্তপ্ত ভারতের রাজধানীর রাজনীতি। সেই উত্তাপ আরও বাড়ালেন ওয়েনাড়ের সংসদ সদস্য রাহুল গান্ধী। শনিবার একের পর এক বিষয় তুলে মোদিকে নিশানা করেন তিনি। তার কথায়, ‘প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পেগাসাস স্পাইওয়্যারকে অস্ত্র হিসেবে দেশ ও দেশের প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবহার করেছেন। একে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। কর্নাটকে সরকার ফেলতে... যা হয়েছে, তাকে এককথায় রাষ্ট্রদ্রোহ ছাড়া কিছুই বলা যায় না।’

এ ঘটনায় রাহুল আবার সুপ্রিম কোর্টের নজরদারিতে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি তুলেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদ থেকে অমিত শাহর ইস্তফাও চেয়েছেন। কিন্তু স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় কুমার বলছেন, ‘স্পাইওয়্যার বিষয়ে সব স্পষ্ট করে বলে দিয়েছি। তদন্তের প্রশ্নই নেই।’

পেগাসাস কাজে লাগিয়ে রাহুল গান্ধীর ফোনকেও আড়িপাতার জন্য নিশানা করা হয়েছিল বলে আগেই জানা গিয়েছিল। শনিবার রাহুল দাবি করেছেন, ‘সম্ভাব্য নিশানা নয়। আমার ফোনে নির্দিষ্টভাবেই আড়িপাতা হয়েছিল।

দেশের রাফাল চুক্তির সঙ্গে পেগাসাস যোগ নিয়ে প্রশ্ন ওঠা সম্পর্কে রাহুলের বক্তব্য, ‘আগেই বলেছিলাম, রাফাল চুক্তিতে চুরি হয়েছে। ফ্রান্সে এর তদন্ত হচ্ছে। আপনারা দেখতে পাবেন, প্রধানমন্ত্রী নিজে এ দুর্নীতির জন্য দায়ী। প্রধানমন্ত্রী ভাবতে পারেন, তিনি সবাইকে দমিয়ে রাখতে পারেন। কিন্তু সবাইকে কিনে ফেলা যায় না।