তরুণদের ক্যারিয়ার সম্পর্কে সচেতন করতে আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ উপ-কমিটির উদ্যোগে এবং সেন্টার ফর রিসার্স অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) সহযোগিতায় ‘কর্মজীবনের কর্মশালা’র প্রথম এবং দ্বিতীয় ব্যাচ সম্পন্নকারীদের নিয়ে ‘যোগাযোগ দক্ষতা উন্নয়ন’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। একইসঙ্গে শুরু হয়েছে তৃতীয় ব্যাচের রেজিস্ট্রেশন। আগ্রহীরা https://career.albd.org/ এ ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

রোববার ও সোমবার (১২ও ১৩ সেপ্টেম্বর) দুইদিন বিকেল ৩টা থেকে শুরু হয় কর্মশালার মূল আয়োজন। সব অংশগ্রহণকারী মূল অনুষ্ঠানের আগেই জুম প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অনলাইনে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ উপ-কমিটির সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা কর্মশালাটির উদ্বোধন করেন। এসময় তিনি বলেন, যোগাযোগ দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়টি ক্যারিয়ারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আশা করি এ প্রশিক্ষণ থেকে সবাই খুবই উপকৃত হবে। এরপর তিনি সবার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করে কর্মশালার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

কর্মজীবনের কর্মশালা আয়োজনটিতে সার্বিক সহযোগিতা করছে গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্স অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)। যোগাযোগ দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক আয়োজন প্রসঙ্গে সিআরআই-এর সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ বলেন, যোগাযোগ দক্ষতা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে এতটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ যে এ দক্ষতা না থাকলে কোনো কাজই কেউ সঠিক ও সহজভাবে করতে পারে না। এ দক্ষতা অর্জন করে যাতে কর্মজীবনে সফল হতে পারেন, সে ইচ্ছা আর চেষ্টা থেকেই আজকের এই আয়োজন।

কর্মজীবনের কর্মশালার শুরু থেকেই যুক্ত আছেন তথ্যপ্রযুক্তিবিদ সুফি ফারুক ইবনে আবু বকর। কর্মশালাটি সম্পর্কে তিনি বলেন, সঠিকভাবে যোগাযোগ করতে না পারার কারণে অনেক সুন্দর সুযোগ আমরা হারিয়ে ফেলি। আর নিজেদের ব্যর্থ মনে করে হতাশ হয়ে পড়ি। আজকের এ আয়োজন সেই সব বিষয় লক্ষ্য করেই করা হয়েছে।

সব অংশগ্রহণকারী মূল অনুষ্ঠানের আগে জুম প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অনলাইনে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন

কর্মশালার শেষ দিনে অতিথি বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোহেলী সুলতানা সুমী। তিনি কর্মজীবনে প্রবেশের আগের সময়ে সব যেসব মনস্তাত্ত্বিক সমস্যা তৈরি হয়, সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন এবং কী করলে একজন কর্মপ্রত্যাশী ব্যক্তি সব মনস্তাত্ত্বিক সমস্যা মোকাবিলা করে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেন, সে বিষয়ে আলোচনা করেন।

যোগাযোগ দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চৌধুরী শোভন রফিক শুভ, যিনি যোগাযোগ দক্ষতা বিষয়ে একজন বিশেষজ্ঞ। তিনি সুন্দর এবং সহজবোধ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীদের দেখান, কেন এবং কীভাবে যোগাযোগ দক্ষতা আমাদের জন্য সবার আগে প্রয়োজন। তার উপস্থাপনায় আরও উঠে আসে, যোগাযোগের ধরন, সময়, মাধ্যম, উপস্থাপন ইত্যাদি অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

সোমবার প্রশিক্ষণ কর্মশালার শুরুতেই চৌধুরী শোভন রফিক শুভ গতদিনের ধারাবাহিকতায় প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করেন। যোগাযোগ কী, কেন করতে হয়, কীভাবে করতে হয়, যোগাযোগের ধরন, সফল যোগাযোগ, ব্যর্থ যোগাযোগ ইত্যাদি নানা বিষয়ে অংশগ্রহণকারীদের বিস্তারিতভাবে বলেন।

অতিথি বক্তা হিসেবে এ দিন আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ। তিনি লিডারশিপ বা নেতৃত্ব কী, কীভাবে লিডার হওয়া যায়, একজন ভালো লিডারের বৈশিষ্ট্য ইত্যাদি নানা বিষয়ে বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন করেন।

কর্মশালা কার্যক্রমের শেষ পর্যায়ে সুফি ফারুক ইবনে আবু বকর বলেন, প্রশিক্ষণ না নিলে আপনি দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন না। আর দক্ষ হতে না পারলে আপনি কাজ পাবেন না। তাই দক্ষতা অর্জন করুন। তাহলে আপনাকে কাজ খুঁজতে হবে না, কাজ আপনাকে খুঁজে নেবে।

পরবর্তী কার্যক্রম প্রসঙ্গে তন্ময় বলেন, এবার তৃতীয় ব্যাচের প্রাথমিক কাজ চলছে। খুব শিগগির আমরা তৃতীয় ব্যাচ শুরু করতে পারব। আমাদের রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া আবারও উন্মুক্ত করা হয়েছে। যারা রেজিস্ট্রেশন করতে আগ্রহী, তারা এখন করতে পারবেন।