বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) দিবস-২০২১ এর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের প্রতিনিধি দল ঢাকায় এসেছে। বিজিবির আমন্ত্রণে শনিবার সকালে বিএসএফ মহাপরিচালক (ডিজি) শ্রী পংকজ কুমার সিংয়ের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি ঢাকায় আসে। রোববার থেকে ঢাকার পিলখানায় দিবসটি উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী কর্মসূচি শুরু হচ্ছে।

অনুষ্ঠানের প্রথম দিন রোববার বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভিডিও টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে অভিবাদন গ্রহণ এবং ভাষণ দেবেন। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী পিলখানায় নবনির্মিত ‘সীমান্ত সম্মেলন কেন্দ্র’ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। এ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে বীরত্বপূর্ণ ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বিজিবি কর্মকর্তা ও সদস্যদের পদক দেবেন।

এর আগে সকাল ১০টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এবং বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম আনুষ্ঠানিক কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করবেন।

বিজিবি জানায়, ভারতীয় প্রতিনিধি দলটি রোববার পিলখানা সদর দপ্তরে বিজিবি দিবসের আনুষ্ঠানিক কুচকাওয়াজ ও অন্যান্য অনুষ্ঠানে যোগ দেবে। এর আগে শনিবার সকালে বিএসএফ মহাপরিচালকের নেতৃত্বে সাত সদস্যের দলটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম তাদের অভ্যর্থনা জানান। এরপর বিমানবন্দর থেকে মোটর শোভাযাত্রার মাধ্যমে বিএসএফ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বিজিবি সদর দপ্তরে পৌঁছে পিলখানা ‘সীমান্ত গৌরব’-এ মহান মুক্তিযুদ্ধে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

পিলখানায় ‘সীমান্ত গৌরব’-এ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিএসএফ ডিজি শ্রী পংকজ কুমার সিং।

বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, বিএসএফ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা রোববার ‘বিজিবি দিবস-২০২১’ উপলক্ষে আয়োজিত আনুষ্ঠানিক কুচকাওয়াজে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। অনুষ্ঠান শেষে ২১ ডিসেম্বর প্রতিনিধি দলটির ভারতে ফিরে যাওয়ার কথা রয়েছে।

বিজিবি কর্মকর্তারা বলছেন, বিএসএফ মহাপরিচালকের এই সফর বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যকার বিরাজমান পারস্পরিক সৌহার্দ্যপূর্ণ আস্থা ও সুসম্পর্ক জোরদারে ভূমিকা রাখবে। এ ছাড়া দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বৃদ্ধি এবং উভয় দেশের সীমান্ত সমস্যা নিরসনে অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা পালন করবে।