ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

রূপশৈলী

ত্বকের যত্নে ফেসপ্যাক

ত্বকের যত্নে ফেসপ্যাক

মৌ মণি পুষ্প

প্রকাশ: ১৫ মে ২০২৪ | ১০:২৫

সময়টা গ্রীষ্মকাল। অন্য সবকিছুর সঙ্গে তীব্র গরমের প্রভাব পড়ছে আপনার ত্বকেও। শুষ্ক, তৈলাক্ত, সংবেদনশীল যেমনই হোক আপনার ত্বক, আবহাওয়া অনুযায়ী একটু বিশেষ যত্ন দরকার হয়ই। 
সাধারণত গরমকালে অতিরিক্ত গরম ও ক্রমাগত ঘাম হওয়ার কারণে কোনো ধরনের স্কিনকেয়ার প্রডাক্ট বা মেকআপ প্রসাধনী থাকতে চায় না, যার কারণে বের হলেই ত্বক হয়ে পড়ে মলিন, তৈলাক্ত। ত্বকে সংক্রমণের ঝুঁকিও বেড়ে যায়। তাই এ গরমে ত্বকের যত্নে প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি ঘরোয়া কিছু ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। এতে যে শুধু ত্বক স্বাস্থ্যোজ্জ্বল থাকবে তাই নয়, ব্রণের সমস্যা, ব্যাকটেরিয়া, অতিরিক্ত তেলতেলে ভাব এসবও দূর করবে।
শসা ও অ্যালোভেরার ফেসপ্যাক
শসা আর অ্যালোভেরা দুটিতেই আছে কুলিং উপাদান আর ময়েশ্চারাইজার, যা ত্বকের আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ফাঙ্গাল,  যা ব্রণ আর ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে ত্বককে বাঁচায়।
অর্ধেকটা শসা ব্লেন্ড করে নিন, তার পর রস ছেঁকে নিন। দুই টেবিল চামচ প্রাকৃতিক অ্যালোভেরা জেল, এর সঙ্গে শসার রসটা মিশিয়ে নিন। এবার ত্বকে সমানভাবে ফেসপ্যাকের মতো লাগিয়ে নিন। ১৫-২০ মিনিট রেখে দিন। এর পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ প্যাকটি আপনার ত্বকের রোদে পোড়া দাগ কমাবে, ময়েশ্চারাইজিং করবে, ওপেন পোরস ছোট করতে সাহায্য করবে এবং সতেজতা বাড়াবে।
তরমুজ আর দইয়ের ফেসপ্যাক
তরমুজ মূলত গরমকালের ফল। এটা শুধু সুস্বাদু আর শরীরের জন্যই ভালো নয়, ত্বকের জন্যও খুব উপকারী। ৯৯ শতাংশ পানি থাকার কারণে আমাদের শরীর ও ত্বক দুটোকেই তরমুজ চমৎকারভাবে হাইড্রেট করে। 
কয়েক টুকরো পাকা তরমুজ নিয়ে ব্লেন্ড অথবা রস করে নিন। এর সঙ্গে মেশান দুই টেবিল চামচ টক দই। মুখে ও ঘাড়ে সমানভাবে লাগিয়ে নিন; ২০-২৫ মিনিট রাখার পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তরমুজ ত্বকের টোন ঠিক করে, রোদে পোড়া দাগ কমায় আর ময়েশ্চারাইজ করে। টক দই ত্বককে খুব হালকাভাবে এক্সফোলিয়েট আর উজ্জ্বল করে। এতে আপনার চেহারায় একটা প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা চলে আসে।
মধু ও পেঁপের ফেসপ্যাক
পেঁপেতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও এনজাইম থাকে; যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। মধুতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে বাঁচায়। এক টুকরো পাকা পেঁপে ভালোভাবে ম্যাশ করে বা ব্লেন্ড করে নিন, সঙ্গে এক টেবিল চামচ খাঁটি মধু মেশান। মিশ্রণটি এবার মুখে ও গলায়-ঘাড়ে সমানভাবে লাগিয়ে নিন। ১৫-২০ মিনিট রাখার পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। পেঁপে ত্বকের ডেড সেল তুলে ফেলে আর মধু ময়েশ্চারাইজ করে ও একই সঙ্গে পুষ্টি জোগায়। এই প্যাক দেওয়ার পর ত্বক মসৃণ ও কোমল হবে।
পুদিনা ও মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক
তৈলাক্ত আর সংবেদনশীল ত্বকে মুলতানি মাটি প্রায় ম্যাজিকের মতো কাজ করে। মুলতানি মাটি তেল শোষণ ক্ষমতার জন্য বিখ্যাত। পুদিনা পাতার মধ্যে থাকা মেনথলের কথা কারোরই অজানা নয়। একমুঠো তাজা পুদিনা পাতা নিয়ে তা পিষে পেস্ট বানিয়ে নিন। এবার এতে দুই চামচ মুলতানি মাটি ও পরিমাণ মতো গোলাপজল দিয়ে মসৃণ পেস্ট বানিয়ে নিন। মুখে, গলায় ও ঘাড়ে এ মিশ্রণটি সুন্দরভাবে লাগিয়ে নিন, ততক্ষণ রাখুন যতক্ষণ না মাটি শুকিয়ে গিয়ে আলগা হয়ে পড়ে। এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। এ প্যাক ত্বকের অতিরিক্ত তেল সরিয়ে দেয়, বন্ধ হওয়া পোরস খুলে দেয়। এর ফলে ত্বকে একটা সুন্দর টানটান অনুভূতি হয়।
কমলার খোসা আর চন্দন ফেসপ্যাক
কমলার খোসায় একই সঙ্গে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আর ভিটামিন-সি রয়েছে। দুই টেবিল চামচ কমলার খোসা গুঁড়া, এক টেবিল চামচ চন্দন গুঁড়া আর পরিমাণমতো গোলাপজল দিয়ে পেস্ট বানিয়ে নিন। তারপর পুরো মুখে, গলায় ও ঘাড়ে সমানভাবে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর্যন্ত শুকাতে দিন। এই প্যাক সান ট্যান কমায়, স্কিনটোন সুন্দর করে। এর ফলে ত্বক প্রাকৃতিকভাবে চকচকে দেখায়।
একটা জিনিস মনে রাখতে হবে, যে কোনো নতুন উপাদান ত্বকে ব্যবহার করার আগে অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিতে হবে এতে আপনার অ্যালার্জি আছে কিনা। অ্যালার্জি থাকলে তা এড়িয়ে চলতে হবে এবং এর বিকল্প অন্য কিছু ব্যবহার করতে হবে। v
মডেল: তামান্না; 
ছবি: আর্কাইভ

আরও পড়ুন

×