ভালো-মন্দ মিলিয়ে কেটেছে ২০২১। শুধু টিভি মিডিয়া নয়, সারাদেশের অবস্থা একই ছিল। করোনার অস্থিরতা ছিল, সঙ্গে সঙ্গে অস্থিরতা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা ছিল সবার মধ্যে। যেভাবেই বলি না কেন, এই সময় ভালো প্রোডাকশন বানানো খুব কঠিন। এ কঠিনকেই ভালোবেসে বেশ কিছু ভালো নাটক, সিনেমা, ওয়েব কনটেন্ট নির্মাণ হতে দেখেছি আমরা। নানা সীমাবদ্ধতার মধ্যে কাজগুলো হয়েছে। অনেক কাজ দর্শকের প্রশংসা পেয়েছে।
আমি আমার ইন্ডাস্ট্রির সব সহকর্মীর সাহস ও পরিশ্রমকে সম্মান জানাই। করোনার এই সময়ে যেসব ভালো নির্মাণ আমরা দেখেছি, সেটা তাদের কাজের প্রতি অপরিসীম ভালোবাসার জন্যই দেখতে পেরেছি। এ বছর টিভি-ইউটিউব আগের মতোই ছিল। নিয়মিত কনটেন্ট পাওয়া গেছে এই দুই মাধ্যমে। কয়েক বছর ধরে ইউটিউবই দর্শকের জন্য সবচেয়ে আরাম করে কনটেন্ট দেখার মাধ্যম। সে জন্যই এই মাধ্যমের দর্শক সবচেয়ে বেশি।
২০২১ সালে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আরও বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। নতুন দর্শক তৈরি হচ্ছে এই মাধ্যমে। এখনকার দর্শক আগের চেয়ে বেশি সচেতন। সব দিকেই চোখ রাখছেন তারা। তাই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, নির্মাতা থেকে শুরু করে নির্মাণের সঙ্গে জড়িত সবাইকে আরও দায়িত্বশীল হয়ে কাজ করতে হচ্ছে। যার ফলে ভালো কাজের সংখ্যা বাড়ছে। নির্মাণে নতুন ধরনের ট্রিটমেন্ট, এক্সপেরিমেন্ট দেখা যাচ্ছে। বিদায়ী বছর শোবিজের আমরা হারিয়েছি অনেক গুণী মানুষকে। তাদের শূন্যতা পূরণ হওয়ার নয়।
২০২২। নতুন বছর। নতুন স্বপ্ন নিয়ে বছর শুরু হচ্ছে। এ বছর নির্মাণের সঙ্গে আমার পথচলার ১০ বছর হবে। সুতরাং এ বছরটা আমার জন্য স্পেশাল এবং গুরুত্বপূর্ণ। দর্শকের ভালোবাসার কারণেই এই দীর্ঘপথ পাড়ি দেওয়া সম্ভব হয়েছে। আমি চাইব, এই বছর ব্যক্তিগতভাবে বেশ কিছু ভালো নির্মাণ উপহার দিতে। পুরো ইন্ডাস্ট্রিকে ঘিরে আমার প্রত্যাশা সব সময়ের মতো একটাই- মানেগুণে আমাদের দেশীয় কনটেন্ট আরও বেশি এগিয়ে যাক।


লেখক
নাট্যনির্মাতা