ক্রীড়াঙ্গনে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে রাশিয়াকে। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদলত (কোর্ট অব আর্বিট্রেশন অব স্পোর্টস-সিএএস) বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। রাশিয়ার তাই টোকিও অলিম্পিক এবং কাতার বিশ্বকাপসহ শীর্ষ পর্যায়ের ক্রীড়া আয়োজনে অংশ নেওয়া হচ্ছে না।

এর আগে রাশিয়াকে আন্তর্জাতিক ডোপিং বিরোধী সংস্থা (ওয়াডা) চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে রিট করেছিল রাশিয়া। সিএএস সেই সাজাটা চার বছর থেকে কমিয়ে দুই বছরে নামিয়ে এনেছে। তারপরও রাশিয়ার বিশ্বের সবচেয়ে বড় দুই ক্রীড়া আয়োজন অলিম্পিক ও বিশ্বকাপ ফুটবলে অংশ নিতে পারছে না।

রাশিয়ার এই নিষেধাজ্ঞা থাকবে ১৬ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত। আর কাতার বিশ্বকাপ শুরু হবে নভেম্বরে। এই সময়ে তারা অলিম্পিক-বিশ্বকাপ ছাড়াও অংশ নিতে পারবে না ২০২২ বেইজিং প্যারা অলিম্পিকে। তবে ২০২২ ইউরোতে অংশ নিতে পারবে তারা। কারণ ইউরো উয়েফার আয়োজন হওয়ায় এটাকে বৈশ্বিক বা বড় আসর হিসেবে দেখা হচ্ছে না।

সিএএস এক বিবৃতি দিয়ে তাদের রায় জানিয়ে বলেছেন, ‘নীতিমালার ভয়াবহ লঙ্ঘনের কারণে তাদের এ নিষেধাজ্ঞা সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্যানেল। খেলার মাঠে নৈতিকতা বজায় রাখতে ডোপিংয়ের বিরুদ্ধে তৎপর থাকার এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখা হবে। ওয়াডার দেওয়া সাজাটা কমিয়ে দেওয়া হয়েছে, কিন্তু এটাকে নীতিমালা লঙ্ঘনকে বৈধতা দেওয়া হলো- এমন ভাবার উপায় নেই।’