জাপানে রাজধানী টোকিওতে একটি পাতাল রেলে ছুরি নিয়ে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় অন্তত ১৭ জন মারাত্মক আহত হয়েছেন। 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসা ভিডিওতে দেখা গেছে, ট্রেনের জানালা দিয়ে আগুনের ধোঁয়া বেরিয়ে আসছে। ট্রেনটিকে জরুরি বার্তা দিয়ে থামানোর পর যাত্রীরা জানালা দিয়ে লাফিয়ে নামছেন। জরুরি নির্গমনের দরজা দিয়ে হুড়োহুড়ি করে বের হতে গিয়ে অনেকে হোঁচট খেয়ে পড়ে যাচ্ছেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাপানের স্থানীয় সময় রোববার রাত ৮টার দিকে টোকিওর পশ্চিম দিকে শহরতলি স্টেশন কোকোরিওতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে ২০ বছর বয়সী এক তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি হ্যালোউইনের পোশাক পরা ছিলেন। 

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত ও ফুটেজ বিশ্লেষণ করে বিবিসি বলছে, সন্দেহভাজন সেই তরুণ বেগুনি ও সবুজ রঙা এক পোশাক পরিহিত ছিলেন যাকে দেখতে অনেকটা ‘ব্যাটম্যান’ কমিক সিরিজের কৌতুক চরিত্রের মতোই লাগছিল।

এক প্রত্যক্ষদর্শী জাপানের এক সংবাদপত্রকে বলেন, ‘আমি তো ভেবেছিলাম সে হ্যালোউইন উপলক্ষে নানা কসরত দেখাচ্ছে। কিন্তু কিছুক্ষণ পর আমি দেখলাম সে একটি লম্বা ছোঁড়া হাতে ধীর পায়ে এগিয়ে যাচ্ছে।’

একজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘সেই সন্দেহভাজন তরুণ ট্রেনের চারপাশে কী যেন একটা তরল ছিটিয়ে দিল। তারপর সে আগুন ধরিয়ে দিল।’

বার্তা সংস্থা এপি জাপানের ফায়ার সার্ভিসের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, এই ঘটনায় আহতদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা গুরুতর। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ছুরিকাঘাতের ঘটনার সময় এক বয়োবৃদ্ধ অজ্ঞান হয়ে পড়েন।

জাপানে হিংসাত্মক অপরাধ বিরল হলেও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এমন হামলার ঘটনা বেশ কয়েকটি ঘটে গেছে। চলতি বছর আগস্টে টোকিওর একটি কমিউটার ট্রেনে ছুর নিয়ে হামলার ঘটনায় ১০ জন আহত হন। এর আগে ২০১৯ সালে কাওয়াসাকিতে একটি বাসের জন্য অপেক্ষারত স্কুলছাত্রদের একটি দলকে ছোঁড়া হাতে এক ব্যক্তি আক্রমণ করেছিলেন। ওই ঘটনায় নিহত হন দুজন, আহত হন ১৮ জন।