ইংল্যান্ডের সাদা বলের ক্রিকেটে বিপ্লব ঘটিয়েছেন ইয়ন মরগান। তার নেতৃত্বে দলটির ওয়ানডে ক্রিকেটের চিত্র বদলে গেছে। ‘মরগান ব্রান্ড অব ক্রিকেটে’ ইংল্যান্ড সম্প্রতি পাঁচশ’ ছোঁয়া রান করেছে। দলকে সর্বশেষ বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন তিনি। কিন্তু নিজের ও দলের ভালোর কথা চিন্তা করে মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেছেন তিনি। 

তার অবসরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। এক বিবৃতি দিয়ে মরগান তার সরে যাওয়ার কারণ জানিয়েছেন। সেখানে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় অবসরের কথা বললেও ফর্ম ও ফিটনেসের সঙ্গে লড়তে হচ্ছিল তার। সেজন্য নেতৃত্বে থাকাকালীন অবসর নিলেন মরগান।

বিবৃতি তিনি বলেছেন, ‘সুস্থির ভাবনা-চিন্তার পর তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়া হিসেবে আমি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় বলছি। ক্যারিয়ারের সবচেয়ে উপভোগ্য এবং প্রাপ্তির অধ্যায়ের ইতি টেনে দেওয়া অবশ্যই সহজ সিদ্ধান্ত ছিল না। তবে আমি মনে করি, আমার নিজের জন্য এবং ইংল্যান্ড দলের জন্য এটাই সরে যাওয়ার সেরা সময়।’ 

ইয়ন মরগান দীর্ঘদিন ধরে ইনজুরিতে ভুগছেন। পরপর ওয়ানডে খেলাও তার জন্য কঠিন হয়ে যাচ্ছে। ইনজুরির কারণে অনুশীলনে প্রভাব পড়ছে এবং শেষ প্রভাব এসে পড়ছে তার পারফরম্যান্সের ওপর। যার জন্য ক্ষতির শিকার হচ্ছে তার দল। শেষ পাঁচ ম্যাচে তিনি ২৩.৪৪ গড়ে রান করেছেন। আরেকটি বিশ্বকাপ সামনে রেখে সরে যাওয়ার এটাই ভালো সময় বলে মনে হয়েছে তার।

মরগানের ওয়ানডে অভিষেক হয় আয়ারল্যান্ডের হয়ে। ২০০৬ সালে অভিষেক ম্যাচে তিনি স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৯৯ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। ইংল্যান্ডের হয়ে অভিষেক হয় ২০০৯ সালে। ইংল্যান্ডের হয়ে তার ১৩ বছরের ক্যারিয়ারে দেশটির হয়ে সর্বোচ্চ ওয়ানডে ও টি-২০ রান করেছেন তিনি। সর্বোচ্চ ম্যাচও খেলেছেন। দেশকে ২০১৯ বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন, ২০১০ টি-২০ জয়ী দলেরও অংশ ছিলেন তিনি।