ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের পরই পরিষ্কার করে বলে দিয়েছেন সাকিব, যার যেখানে দুর্বলতা আছে কাটিয়ে উঠতে হবে। তাছাড়া দল থেকে বাদ পড়তে হবে। কথা মতোই কিনা দ্বিতীয় টেস্টের দল থেকে বাদ পড়লেন সদ্য সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। 

এবার ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হারের পর কড়া বার্তা টেস্ট নেতৃত্বের তৃতীয় অধ্যায় শুরু করা সাকিবের। টেস্ট খেলতে চায়লে সতীর্থদের উন্নতি করতে হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। যেভাবে এখন দল টেস্ট খেলছে ওভাবে খেললে আগামীতে বাংলাদেশ দল বেশি দূর এগোতে পারবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি। 

সাকিব বলেন, ‘তিন বিভাগেই উন্নতি দরকার। তাছাড়া টেস্টে ভালো কিছুর আশা নেই। বাইরে আমাদের এমন ক্রিকেটার নেই (তিন-চারজন ছাড়া) যারা আসলে দল ভালো হয়ে যাবে। যারা আছি, একসঙ্গে এগোতে পারলে হয়তো ভালো কিছু হবে। তাছাড়া এতোদিন যা হয়েছে তার চেয়ে ভালোর আশা নেই।’ 

সাকিব দেশের টেস্ট সংস্কৃতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। দেশে টেস্ট মূল্যায়ন হয়না। টেস্ট দেখা হয় না বলে উল্লেখ করেছেন। ওই জায়গা থেকে সামনে এগিয়ে যেতে হলে সমন্বয় দরকার বলে মন্তব্য করেছেন। এছাড়া দেশের মাটিতে টেস্ট জয়ের সংস্কৃতি গড়ে তোলা দরকার বলেও মত তার।

তিনি বলেন, ‘অ্যাওয়ে সিরিজে যেকোন দল আন্ডারডগ। টেস্ট জিততেই হবে এমন নয়।  তবে হোমে যেন না হারি। অন্তত সিরিজ যেন ড্র করতে পারি। এটা করতে পারলে দল অনেকদূর যাবে। অ্যাওয়ে ম্যাচে এটা ভালো খেলতে সহায়তা করবে। অ্যাওয়ে একটা ভালো হলে, অন্যটা হয়তো খারাপ হবে। একসঙ্গে প্ল্যান করে এগোলে হয়তো এটা সম্ভব।’  

এছাড়া দলের ক্রিকেটারদের গেম অ্যাওয়ারনেস দরকার বলেও মন্তব্য করেন তিনি। সাকিব জানান, টি ব্রেক, লাঞ্চ ব্রেক, বৃষ্টি আসবে জেনেও ওই সময়ে দল উইকেট হারিয়েছি। যা গেম অ্যাওয়ারনেসের অংশ। এছাড়া ম্যাচে দল যতটা টাফ হতে পারতো সেটা পারেনি বলেও মন্তব্য করেন তিনি।