ধূমপানের বিকল্প ভেপিং নিষিদ্ধের প্রস্তাব বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ইলেক্ট্রনিক নিকোটিন ডেলিভারি সিস্টেম ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন (বেন্ডস্টা)। সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, সম্প্রতি ভেপিং নিষিদ্ধ করে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০০৫ পুনরায় সংশোধনের খসড়া তৈরি করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। যেখানে ই-সিগারেট বা এর যন্ত্রাংশ বা অংশ-বিশেষ উৎপাদন, আমদানি, রপ্তানি, সংরক্ষণ, ক্রয়-বিক্রয় ও পরিবহন নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব আছে।

ইউকে হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সির (পাবলিক হেলথ অব ইংল্যান্ড) গবেষণার বরাত দিয়ে বেন্ডস্টার সভাপতি মাসুদ উজ জামান বলেন, ভেপিং সাধারণ সিগারেটের তুলনায় ৯৫ শতাংশ কম ক্ষতিকর। কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কোনো গবেষণা, পর্যালোচনা ও সংশ্নিষ্ট অংশিজনের সঙ্গে আলোচনা না করে ভেপিং নিষিদ্ধের প্রস্তাব করেছে।

যুক্তরাজ্যের পদ্ধতি অনুসরণ করে নিয়মতান্ত্রিকভাবে ভেপিংকে উৎসাহিত করা গেলে বাংলাদেশে ৬২ লাখের বেশি ধূমপায়ী প্রচলিত সিগারেট ছেড়ে দেবে জানিয়ে তিনি বলেন, ভেপিং নিষিদ্ধ হলে অনেকে আবার প্রচলিত সিগারেটে ফিরে যাবে। এতে ধূমপায়ীর সংখ্যা বাড়বে।