বর্তমানে ক্রিকেট নিয়ে ব্যস্ত পাকিস্তান। এশিয়া কাপের ভবিষ্যৎ কী হবে আর বিশ্বকাপে পাকিস্তান কী করবে এসবই যেন পাকিস্তান ক্রিকেটের চর্চিত বিষয় এখন। কিন্তু ক্রিকেট নিয়ে পাকিস্তানের এই মাথা ব্যথার মধ্যেই দায়িত্ব ছাড়লেন পাকিস্তানের পুরুষ হকি দলের কোচ সেইগফ্রেড আইকমান।

পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, হকি দলের কোচ সেইগফ্রেড আইকমানের পদত্যাগের কারণ বেতন না পাওয়া। টানা ১২ মাস ধরে বেতন পাচ্ছিলেন না নেদারল্যান্ডসের এই কোচ।

বেতন না পাওয়ায় আগে থেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করে আসছিলেন আইকমান। যোগাযোগ করেছিলেন পাকিস্তান স্পোর্টস বোর্ডের মহাপরিচালক থেকে শুরু করে মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পর্যন্ত। তবে তাতে কোনো সুফল পাননি ডাচ কোচ। কোনো সমাধান না পাওয়ায় শেষমেশ বাধ্য হয়েই ছাড়তে হলো পদ।

চাকরি ছাড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'আমাকে অনেক প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পূরণ করা হয়নি। আমি যে কথা দিয়েছিলাম, তা পূরণ করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এখন সময় সামনে তাকানোর।'

পাকিস্তানের গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, পাকিস্তান স্পোর্টস বোর্ড থেকে আসে হকি কোচের বেতন। তবে হকি ফেডারেশনের সঙ্গে পাকিস্তান স্পোর্টস বোর্ডের দ্বন্দ্বের কারণে বেতন আটকে ছিল আইকমানের। হকি ফেডারেশনের কর্তাব্যক্তিরা জানিয়েছেন, পিএসবিকে কোচের বেতনের ব্যাপারে অনেকবার জানানো হলেও তারা কর্ণপাত করেনি।

বিশ্ব হকিতে জনপ্রিয় নাম সেইগফ্রেড আইকমান। তার অধীনে ২০২০ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক খেলেছিল জাপান ও ২০১৮ সালে তার অধীনেই এশিয়ান গেমস জেতে জাপান। এরপর তাকে কোচ করিয়ে আনে পাকিস্তান। ঘটা করে এই নেদারল্যান্ডের সাবেক হকি তারকাকে কোচ করানো হয়। আশা নিয়ে পাকিস্তানে কোচিং করাতে এলেও ধাক্কা খান তিনি। ম্যানেজমেন্টের অসহযোগিতা তো ছিলই, শেষমেষ বেতন নিয়েই ভোগান্তি পোহাতে হল তাকে।

বিষয় : পাকিস্তান হকি হকি কোচ সেইগফ্রেড আইকমান

মন্তব্য করুন