ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

এবাদত-খালেদের ‘ইঞ্জিনে’ বিস্মিত ডোনাল্ড

এবাদত-খালেদের ‘ইঞ্জিনে’ বিস্মিত ডোনাল্ড

ছবি: ফাইল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১২ মে ২০২২ | ০৬:৪১ | আপডেট: ১২ মে ২০২২ | ০৬:৪১

কিংবদন্তি কিছু পেস বোলিং কোচের সঙ্গে কাজ করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। হিথ স্ট্রিক, কোর্টনি ওয়ালসের পর ওটিস গিবসন লম্বা এক পেস বোলিং লাইন আপ তৈরি করে দিয়ে গেছেন। কিংবদন্তি পেসার অ্যালান ডোনাল্ডের কাজ এখন তাদের ‘জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে, ধুঁয়ে-মুছে’ প্রস্তুত করা।

বাংলাদেশের তরুণ পেস বোলিং ইউনিট নিয়ে খুশি কোচ ডোনাল্ড। শিষ্যরা শিখতে চাওয়ায় ভালো লাগছে তার। তাসকিন-এবাদতদের নিয়ে রীতিমত বিস্মিত তিনি। চট্টগ্রামে দলের অনুশীলন শেষে ওই মুগ্ধতাই প্রকাশ করলেন তিনি, ‘ওয়ানডে ফরম্যাটে শরিফুলকে দেখে আমি সত্যিই মুগ্ধ। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেও তাকে দেখেছিলাম আমি।’

ডোনাল্ড বলেন, ‘আমি সবচেয়ে বিস্মিত হয়েছি খালেদ এবং এবাদতকে দেখে। তাদের ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি আমাকে বিস্মিত করেছে। টেস্টে দুই পেসার, দুই স্পিনার নিয়ে আমি খুব একটা খেলতে দেখিনি। কিন্তু ডারবানে তারা যেভাবে টানা বোলিং করে গেছে, তা ছিল অসাধারণ। সাদা বলে মুস্তাফিজেরও বড় ভক্ত আমি।’

প্রোটিয়া পেস কিংবদন্তি জানান, বাংলাদেশের পেসাররা শিখতে চান। ক্ষুধা আছে। সঠিক প্রশ্নটাই করেন। এই বিষয়গুলো তার ভালো লেগেছে। এখন এই তরুণরা খেলতে খেলতে ক্ষুরধার হবে, ধারাবাহিক হবে বলে বিশ্বাস তার। ডোনাল্ড তাদের মাইন্ডসেট ঠিক করতে চান, মানসিকভাবে শক্তিশালী করতে চান। দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে চান এবং পেসারদের সৃজনশীল করতে চান।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার পেসারদের থেকে নতুন বলে উইকেট চান। পুরনো বলে রিভার্স সুইং এবং ধারাবাহিকতা চান। টাইগার পেস বোলিং কোচের মতে, নতুন বলে ৪০ রানে তিন উইকেট নিতে হবে পেসারদের। প্রতিপক্ষকে চাপে রাখতে হবে। পুরনো বলে একই লেন্থে ধৈর্য রেখে সৃজনশীল বোলিং করে যেতে হবে।

আরও পড়ুন

×