'পুরনো মুস্তাফিজ ফিরলে চ্যালেঞ্জিং হবে বাংলাদেশ'

প্রকাশ: ২২ মে ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ফাইল

এবারের বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্ট কোন চার দল? বর্তমান ও সাবেক ক্রিকেটার, বিশ্নেষক ও ধারাভাষ্যকার- প্রায় সবারই উত্তরে ঘুরেফিরে আসছে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া আর ভারতের নাম। বাড়তি হিসেবে যুক্ত হচ্ছে পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা আর নিউজিল্যান্ড। খেলার ধরনের কারণে উইন্ডিজকেও এগিয়ে রাখছেন কেউ কেউ।

তবে বাংলাদেশ, শ্রীলংকা আর আফগানিস্তানকে সেরা চারে রাখতে অধিকাংশেরই সংশয়। জয়ের সংখ্যায় গত এক বছরে তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৭ ওয়ানডে জিতলেও বাংলাদেশের ওপর কেন ভরসা রাখা যাচ্ছে না, তার একটি উত্তর দিয়েছেন অনিল কুম্বলে। ভারতের এই সাবেক অধিনায়ক ও কোচ মনে করছেন, ধারাবাহিকতাই বাংলাদেশের বড় চ্যালেঞ্জ। তবে মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বাধীন দলটিকে হালকাভাবেও নেওয়া যাবে না বলে মনে করেন তিনি।

বিশ্বকাপের বাংলাদেশ দল নিয়ে কুম্বলে তার মতামত জানান 'ক্রিকেটনেক্সট'-এর এক সাক্ষাৎকারে। দলকেন্দ্রিক আলোচনার বাংলাদেশ পর্বে মাশরাফিদের সম্ভাবনার কথা বলতে গিয়ে সাবেক এই লেগস্পিনার বলেন, 'বাংলাদেশকে কোনোভাবেই হালকা করে নেওয়ার সুযোগ নেই। গত কয়েক বছর ধরে ওরা সত্যিই দারুণ ক্রিকেট খেলছে। মাশরাফি খুবই ভালো একজন অধিনায়ক। দলকে খুব ভালো বোঝে, সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে জানে। ওর নেতৃত্বে ভিন্ন এক বাংলাদেশকে দেখবে সবাই।'

কেবল অধিনায়কের কারণে নয়, বাংলাদেশ দলে যে বেশ কয়েকজন পরীক্ষিত ক্রিকেটার আছেন, সেই প্রসঙ্গও এনেছেন কুম্বলে, 'এখনকার বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। নিয়মিত শুরুতে রান করছে। সাকিবের কথা আমরা সবাই জানি। ব্যাটিং, বোলিংয়ে বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডারদের একজন। মুশফিক দারুণ ব্যাটসম্যান, সেঞ্চুরি করে ম্যাচ ফিনিশিং করার অভিজ্ঞতা আছে। মাহমুদুল্লাহও ভালো ব্যাটসম্যান। অর্থাৎ, সব ধরনের সামর্থ্যই এ দলটির আছে।'

সিনিয়র ক্রিকেটারদের ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের কারণেই ২০১৫ বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল এবং ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে সেমিফাইনাল খেলেছিল বাংলাদেশ। উভয় নকআউট ম্যাচে ভারতের কাছে হেরে যাওয়ার বিষয়টির অভিজ্ঞতায় কুম্বলে বলেন, 'নকআউটে ওদের দুর্বলতা আছে। আমরা ২০১৫তে দেখেছি, ২০১৭তেও দেখেছি। এবারের বিশ্বকাপে এটা তাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জিং হবে।'

কুম্বলের মতে বাংলাদেশের দুর্বলতা আছে বোলিংয়েও, বিশেষ করে পেস বিভাগে, 'স্পিন বিভাগ ভালো। তবে বিশ্বকাপে যে ধরনের ফাস্ট বোলিং সবাই প্রত্যাশা করে, বা ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়ার মতো দলগুলোর যে ফাস্ট বোলিং সক্ষমতা আছে, সেটা বাংলাদেশের নেই।'

এক্ষেত্রে মুস্তাফিজুর রহমানকে উদাহরণ টানেন কুম্বলে। বিশ্বকাপে যদি মুস্তাফিজের প্রথম দিকের বোলিং ফিরে আসে, তাহলে সত্যি সত্যিই অন্য দলগুলোর জন্য হুমকি হয়ে উঠবে বাংলাদেশ, 'মুস্তাফিজ তার ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে দুর্দান্ত ছিল। এখন আগের সেই গতি নেই। বারবার চোটে পড়ার প্রভাব হতে পারে এটি। তার মতো একজন বাঁহাতি পেসার একাদশে থাকা যে কোনো দলের জন্যই সুবিধাজনক। বিশ্বকাপে যদি পুরনো মুস্তাফিজকে ফিরে পাওয়া যায়, তাহলে সত্যি সত্যিই অন্যদের জন্য হুমকি হয়ে উঠবে বাংলাদেশ। তবে মোটের ওপর সবচেয়ে বেশি দরকার ধারাবাহিকতা। এটিই বাংলাদেশের বড় চ্যালেঞ্জ।'

বিষয় : খেলা ক্রিকেট ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ-২০১৯ বাংলাদেশ