বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে বাংলাদেশ

প্রকাশ: ১১ জুন ২০১৯      

ক্রীড়া প্রতিবেদক

খেলার একটি মুহূর্ত

লাওসকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দু'দলের লড়াইটি গোলশূন্যে সমাপ্তি। তাতে নিশ্চিত হয়েছে ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে বাংলাদেশের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার।

৬ জুন বাছাইয়ের প্রথম রাউন্ডে লাওসের মাঠে ১-০ গোলের জয়টিই শেষ পর্যন্ত নিয়ামক হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুই লেগ মিলিয়ে ১-০ গোলে জিতে জামাল ভূঁইয়ারা এখন দ্বিতীয় রাউন্ডে লড়বেন।

জিততে না পারার কষ্টটা ভুলে উৎসবে মেতে ওঠেন জামাল ভূঁইয়ারা। নির্বাসনের শঙ্কা উড়ে গিয়ে ফুটবলে নতুন দিনের জয়গান। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এশিয়া অঞ্চলে ৪০টি দল খেলবে দ্বিতীয় রাউন্ডে।

২০১৬ সালের ১০ অক্টোবর ভুটানের কাছে হারের পর অনেক দিনের জন্য নির্বাসনে চলে গিয়েছিল বাংলাদেশের ফুটবল। কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রিলিমিনারি রাউন্ডে হারলে আবারও নির্বাসনে চলে যেত। কিন্তু এবার আর হতাশ করেননি জামাল ভূঁইয়া-মামুনুল ইসলামরা। হতাশা শুধু ঘরের মাঠে জিততে না পারার। মঙ্গলবারের লড়াইয়ের আগে সর্বশেষ দু'বারের সাক্ষাতে লাওসকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

লাওসের মাঠে জয়ের নায়ক ছিলেন রবিউল। মঙ্গলবার হোমগ্রাউন্ডে তাকে শুরুর একাদশে নামান কোচ জেমি ডে। সেই রবিউল ম্যাচের শুরুতেই লাওসের রক্ষণভাগে কাঁপন ধরিয়ে দেন। কিন্তু আসল কাজ সেই গোলই করতে পারেনি বাংলাদেশ।

প্রথম লেগে পরাজিত লাওস মরিয়া হয়ে খেলে। এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ আক্রমণাত্মক কৌশল অবলম্বন করে। ম্যাচের ৮ মিনিটে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে জামাল ভূঁইয়ার ফ্রি কিক প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের হেডের পর পোস্টের কাছে বল পান ডিফেন্ডার ইয়াসিন খান। কিন্তু বলে পা লাগাতে পারেননি তিনি।

২৫ মিনিটে নিশ্চিত গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন নবীব নেওয়াজ জীবন। বিশ্বনাথ ঘোষের লম্বা করে বাড়ানো বল গোলরক্ষকের গায়ে লেগে পেয়ে যান জীবন; কিন্তু ফাঁকা পোস্ট পেয়েও বল জালে পাঠাতে ব্যর্থ হন এ ফরোয়ার্ড। বিরতির পরও গোল মিসের মহড়ায় মেতে ওঠে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে জেমি ডের দল।

বিষয় : বিশ্বকাপ ফুটবল বাংলাদেশ