কোহলিদের কৌশলে ত্রুটি দেখছেন শচীন-সৌরভ-লক্ষ্মণ

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০১৯     আপডেট: ১১ জুলাই ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ফাইল

গ্রুপ পর্বে সেরা হয়ে সেমিফাইনালে ওঠে ভারত। কিন্তু '৪৫ মিনিটের বাজে' ক্রিকেট খেলে শেষ চারেই বিদায় নেয় তারা। সীমার মধ্যে লক্ষ্য পেয়েও জিততে পারিনি বিরাট কোহলিরা। ভারতের সাবেক ত্রিরত্ন শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলি এবং ভিভিএস লক্ষ্মণ শুরুর ধাক্কা নয়, ক্রুটি দেখছেন অন্যত্র। তাদের মিলিত কণ্ঠে একটাই প্রশ্ন, ভারতের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহেন্দ্র সিং ধোনি কেন সাতে ব্যাটিংয়ে নামলেন?

নিউজিল্যান্ডের ২৩৯ রান তাড়া করতে নেমে ভারত ১৮ রানে হেরেছে। শুরুর ৫ রানে ৩ উইকেট হারায় তারা। পরে ২৪ রানে ৪ উইকেট। এরপর ধোনি খুঁটি হয়ে দাঁড়ালে এবং জাদেজা জাদুতে জয়ের কাছে চলে যায় ভারত। ধোনির রান আউট শেষ পর্যন্ত আক্ষেপ হয়ে থেকেছে ভারতীয়দের। তারা দু'জন গড়েন ১১৬ রানের জুটি। এই জুটিটা পান্ত কিংবা পান্ডিয়ার সঙ্গে ধোনি গড়তে পারলে জয় পেতে পারতো ভারত।

টিভি বিশ্লেষক লক্ষ্মণ বলেন, ধোনিকে সাতে ব্যাটিংয়ে পাঠানো ভারতের কৌশলগত বড় এক ভুল। পান্ডিয়ার আগে ধোনিকে নামানো উচিত ছিল। এমনকি কার্তিকেরও আগে। ধোনির সাতে নয় ব্যাটিং করা উচিত ছিল পাঁচে।' ভারতীয় ক্রিকেটের দাদা সৌরভ গাঙ্গুলি বিষয়টি আরও পরিষ্কার করে বিশ্লেষণ করেছেন।

সৌরভ বলেন, 'পান্তের মতো তরুণরা যখন ব্যাট করছেন। অন্য প্রান্তে ধোনির মতো ঠান্ডা মস্তিষ্কের কারো দরকার ছিল। অভিজ্ঞতা প্রয়োগের দরকার ছিল। ধোনি ক্রিজে থাকলে কোনোভাবেই পান্তকে বাতাসের বিরুদ্ধে তুলে শট খেলতে দিতেন না। ইংল্যান্ডের কন্ডিশন বোঝাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ধোনি থাকলে মিড অফ ও মিড অনে পান্তকে পেসারদের বিপক্ষে শট খেলতে বলত। এমন ম্যাচে ধোনির মতো ব্যাটসম্যানকে সাতে নামানো মানায় না।

ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের এই কৌশলগত ভুল শচীন টেন্ডুলকারও চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন, 'ম্যাচের অমন পরিস্থিতিতে ধোনিই কি সেরা নয়?' প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। টিম ম্যানেজমেন্টের কথা আসতেই চলে আসে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং কোচ রবি শাস্ত্রীর নাম। এমনিতে ধোনির ব্যাটিং পজিশন পাঁচে। কিন্তু এদিন চাপে পড়ে যাওয়ায় ব্যাটিং অর্ডারে বদল আনা হয়। বিশেষ মুহূর্তে এটা ঠিক করেন কোচ-অধিনায়ক।

সামাজিক মাধ্যমে বের হওয়া এক ভিডিওদে দেখা গেছে, ঋষভ পান্ত আউট হওয়ার পরই রাগে গজগজ করতে করতে বেরিয়ে আসেন বিরাট কোহলি। এরপর কোচ রবি শাস্ত্রীর সঙ্গে বাকবিতণ্ডা করেন। কথাবার্তা কি তা জানান উপায় নেই। তবে ধারণা করা হচ্ছে ঋষভ পান্ত ক্রিজে থাকতে হার্ডিক পান্ডিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠানো নিয়েই তার ক্ষোভ। কারণ মারকুটে পান্ত অবিবেচকের মতো সুইপ খেলে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়েছেন। ক্রিজে তাকে নির্দেশনা দিতে পারেননি অনভিজ্ঞ হার্ডিক পান্ডিয়া।