'পেস বোলিংয়ের চিত্র পাল্টে দেবে আর্চার'

প্রকাশ: ১৯ আগস্ট ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: দি টেলিগ্রাফ

অ্যাসেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনটাই বৃষ্টির পেটে চলে যায়। বৃষ্টি বাধা দিয়েছে অন্যদিনও। তারপরও জয়ের সুযোগ তৈরি করেছিল স্বাগতিক ইংল্যান্ড। তবে লর্ডস টেস্টটা শেষ পর্যন্ত ড্র হয়েছে। প্রথম টেস্ট জিতে লিড ধরে রেখেছে অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের বড় পাওয়া জোফরা আর্চার। প্রথম ইনিংসে তিনি নেন দুই উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে অজিদের ছয় উইকেটের তিনটিই নেন তিনি। দুর্দান্ত পেস বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস তুলেছেন তিনি।

সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজের গতিময় পেসারদের একজন মাইকেল হোল্ডিং তাই বলছেন, জোফরা আর্চার আধুনিক পেস বোলিংয়ের চিত্র পাল্টে দেবে।' লর্ডস টেস্টে আর্চারের বল লাগে স্টিভ স্মিথের ঘাড়ে। মাঠ ছেড়ে উঠে যান তিনি। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করলেনও দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামতে পারেননি স্মিথ। তার বদলে ব্যাট করেন মার্নাস ল্যাবুশানে। দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই দুই উইতেট তুলে নেন আর্চার। ইংল্যান্ড জয়ের সুযোগ তৈরি করে।

হোল্ডিং বলেন, 'বালক আর তরুণের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দেয় বলের গতি। আপনার দলে যখন তার মতো গতির একজন পেসার থাকবে। কে চাইবে তাদের বিপক্ষে খেলতে। এই ছেলেটি আধুনিক সময়ের পুরো পেস বোলিংয়ের চিত্র বদলে দেবে। এখনকার সময় আপনি ৮৫ মাইল গতির বোলিং দেখতে পাবেন। সেটাও সচরাচর দেখা যায় না। যখন ৯৫ মাইল বেগের বল খেলতে হবে তখনই বুঝবেন গতি কাকে বলে। খুব বেশি ব্যাটসম্যান পাওয়া যাবে না, সকালে উঠে আর্চারের বল খেলতে হবে জেনেও যে নিশ্চিতে ঘুমাতে যাবে। সে সত্যিই উচ্ছ্বসিত করার মতো এক প্রতিভা।'

লর্ডস টেস্টে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ব্যাট করে ২৫৮ রান করে। জবাবে অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে করে ২৫০ রান। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ড ৫ উইকেটে ২৫৮ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে। অস্ট্রেলিয়া ১৫৪ রান করতেই হারায় ৬ উইকেট। দিন শেষ হয়ে যাওয়ায় ম্যাচ ড্র হয়। প্রথম ইনিংসে স্মিথ ৯২ রান করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে বেন স্টোকস সেঞ্চুরি করেন।