বিপিএল কোচিংয়ে আগ্রহী সাবেকরা

প্রকাশ: ২০ অক্টোবর ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

ক্রীড়া প্রতিবেদক

রিচার্ড হ্যালসল, হিথ স্ট্রিক, স্টিভ রোডস বাংলাদেশের ক্রিকেটে এই নামগুলো সুপরিচিত। তিনজনই ছিলেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ। তাদের সঙ্গে সুখ-দুঃখের অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে টাইগারদের। আন্তর্জাতিক এই কোচদের কেউ বিসিবির চাকরি ছেড়ে গেছেন। আবার কেউ চুক্তির মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি। ভালো-মন্দের মিশেল অভিজ্ঞতা নিয়ে দেশে ফিরে গেলেও বাংলাদেশকে ভোলেননি তারা। তাই তো বিপিএলের কোচ হতে আবেদন করেছেন জাতীয় দলের সাবেক এই তিন কোচ।

বিসিবির এই টি২০ টুর্নামেন্টে আগ্রহী কোচের তালিকায় বড় নাম আছে আরও। অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার, গ্র্যান্ড ফ্লাওয়ার, ডিন জোন্স, ট্রেভর পেনি তাদের অন্যতম। গতকাল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক জানান, ৪০ জনের মতো আন্তর্জাতিক কোচের নাম পেয়েছেন তারা।

বঙ্গবন্ধুর নামে হচ্ছে বিপিএলের সপ্তম আসর। ফ্র্যাঞ্চাইজি না থাকায় টুর্নামেন্ট আয়োজনের সব খরচই বিসিবির। এজন্য সাতটি দলের জন্য স্পন্সর জোগাড়ের চেষ্টায় আছে বোর্ড। সম্পূর্ণ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত এই টুর্নামেন্টের সাত দলের জন্য সাতজন বিদেশি কোচ নিয়োগ দেওয়া হবে। বিসিবির এই উদ্যোগে সাড়া পড়ে গেছে কোচদের মধ্যে। খণ্ডকালীন সময়ের জন্য এই কাজ পেতে চান তারকা কোচদের অনেকে। বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্কে জানাশোনা আছে, এমন কোচদের অনেকেই আবেদন করেছেন। ফ্র্যাঞ্চাইজি বিপিএলে কাজ করা কোচরাও থাকতে চান বিসিবির আয়োজনে। তবে এই তালিকায় নেই রংপুর রাইডার্সের কোচ টম মুডি।

ছবি: সমকাল

বিপিএলের প্রথম আসরে চিটাগং কিংসের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর ছিলেন। এই অস্ট্রেলিয়ানের অধীনে চিটাগং কিংসের কোচ ছিলেন খালেদ মাহমুদ সুজন। ওই আসরে সেরা চারের লড়াইয়ে থেকেও সেমিফাইনাল খেলা হয়নি চিটাগং কিংসের। ট্রেভর পেনির সঙ্গে বিসিবির খণ্ডকালীন চুক্তি আছে বিসিবির। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ফিল্ডিং পরামর্শক হিসেবে এ বছরই কাজ করে গেছেন তিনি। জানুয়ারিতে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ঠিক আগে এক সপ্তাহের জন্য যুবাদের ফিল্ডিং পরামর্শক কোচের দায়িত্বে দেখা যেতে পারে তাকে।

অ্যান্ডি বা গ্র্যান্ড ফ্লাওয়ার সহোদর কোনো সময় বিসিবিতে কাজ করেননি। যদিও অ্যান্ডি ফ্লাওয়ারকে জাতীয় দলের কোচ হিসেবে পাওয়ার খুব আগ্রহ ছিল বিসিবির। ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ায় খণ্ডকালীন সময়ের জন্য বিপিএলের চাকরিটা পেলে মন্দ হয় না তার জন্য। কার্টলি অ্যামব্র্রোসও নিজেকে কোচিংয়ে যুক্ত করতে চান বিপিএল দিয়ে। তবে কোচদের এই লম্বা তালিকা থেকে সাতজনকে চূড়ান্ত করবে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। সাত দলের সাত বিদেশি কোচের সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বিসিবির কোচরা। বিদেশি এমন কোচ নিয়োগ দিতে চায় বিসিবি যাদের কাছ থেকে দেশের কোচরা কিছু শিখতে পারবেন।

টুর্নামেন্টের চাকচিক্য বাড়াতেও ডাগআউটে তারকা কোচদের দরকার পড়বে। বিদেশি কোচ নিয়োগের ক্ষেত্রে এই জিনিসগুলোও মাথায় রাখতে হচ্ছে বিপিএলের কর্মকর্তাদের। শনিবার কোচ, খেলোয়াড়দের তালিকা নিয়েই বসেছিলেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের কর্মকর্তারা। দেশি ক্রিকেটারদের গ্রেডিং ঠিক করে দিয়েছেন নির্বাচকরা। জালাল ইউনুস জানান, দু-একদিনের মধ্যে কোচ এবং খেলোয়াড় বাছাইয়ের কাজ আরও কিছুটা এগিয়ে নিতে পারবেন তারা।