ইডেন টেস্ট

সব ভুলে মন ইডেনে

প্রকাশ: ১৯ নভেম্বর ২০১৯      

আলী সেকান্দার, ইন্দোর থেকে

ছবি: বিসিবি

ইন্দোর থেকে একটু সুখস্মৃতি নিয়ে যেতে পারলে কলকাতায় ভালো খেলার টনিক পাওয়া যেত। প্রথম টেস্ট তিন দিনে হেরে যাওয়ায় সেটা তো সম্ভব হচ্ছেই না; বরং মানসিকভাবে স্বাগতিকদের চেয়ে একটু হলেও নিচে থেকে টাইগাররা মঙ্গলবার পা রাখবে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানীতে। সকাল ১১টায় ইন্দোর থেকে বিশেষ ফ্লাইটে রওনা হয়ে দুপুরের মধ্যেই সৌরভ গাঙ্গুলীর শহরে পৌঁছবে বাংলাদেশ। বাঙালির প্রাণের শহরে পৌঁছে মুমিনুলরাও প্রাণোচ্ছল হয়ে উঠতে পারেন। খেলোয়াড়দের মানসিকভাবে চাঙ্গা হতে কলকাতায় তো আর কম রসদ নেই।

বিসিসিআই সভাপতি সৌরভও তো কতরকম রসদ সাজিয়ে রেখেছেন টাইগারদের উজ্জীবিত করার জন্য। তিনিও তো চান একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ টেস্ট হোক ইডেনে। দর্শক পাঁচ দিন খেলা দেখার সুযোগ পাক। দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচটি দেখার জন্য যে সৌরভের আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলকাতায় থাকবেন ২২ নভেম্বর, টাইগারদের ভালো খেলার জন্য এরচেয়ে বড় টনিক আর কী হতে পারে। সোমবার ইন্দোরে শেষ অনুশীলন সেরে দলের প্রতিনিধি হিসেবে মেহেদী হাসান মিরাজ জানালেন, তারা উজ্জীবিত। দলের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে অগ্রিম শুভেচ্ছাও জানালেন তিনি। ইডেনের টাইগারদের নতুন মিশনটা রানে আর উইকেটের শৌর্যবীর্যে ভরে উঠেলে বিক্ষিপ্ত মনও স্বস্তি পাবে।

হলকার স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট ম্যাচ শেষ করে বসে থাকেননি বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। দুটো দিনই গোলাপি বলে দিবারাত্রির ম্যাচের প্রস্তুতি নিয়েছেন। রোববার ঐচ্ছিক অনুশীলন রাখা হলেও ১০ ক্রিকেটার ছিলেন অনুশীলনে। সোমবার ১৫ সদস্যের স্কোয়াডের সবাই প্র্যাকটিস করেন সূর্যের আলো ও ফ্লাডলাইটের নিচে, ব্যাট-বল দুটোতেই।

মিরাজ জানান, ইডেনে দিবারাত্রির টেস্টে যে সমস্যাগুলো হতে পারে তার পূর্বপ্রস্তুতি সব আঙ্গিক থেকেই নেওয়ার চেষ্টা করেছেন তারা। প্রথমে নতুন বলে হয় অনুশীলন। এরপর বল পানিতে ভিজিয়ে পেস এবং স্পিন দু'ধরনের বোলাররাই মহড়া দেন। ডানহাতি এ অফস্পিনার জানান, গোলাপি বল নিয়ে যে ভীতির কথা শোনা গেছে, তার পুরোটাই কেটে গেছে দুই দিনের প্রস্তুতিতে। দিবারাত্রির টেস্ট খেলতে উন্মুখ হয়ে আছেন তারা। এক ধরনের রোমাঞ্চ কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

কলকাতায় ম্যাচে নামার আগে আরও দুটি অনুশীলন সেশন পাবে টাইগার শিবির। বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবীদ ইমাম জানান, মঙ্গলবার বিশ্রাম দিয়ে কাল ও পরশু ম্যাচ ভেন্যু ঐতিহাসিক ইডেনে হবে প্র্যাকটিস। কাল সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত বাংলাদেশ দলের অনুশীলন রাখা হয়েছে। ম্যাচের আগের দিন দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত শেষ ঝালাই করে নেওয়ার সুযোগ পাবে। এই সূচিগুলো আগে থেকেই ঠিক করে দিয়েছে বিসিসিআই। মঙ্গলবার বিশ্রাম থাকায় রাতে কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনারের নিমন্ত্রণে যাবেন ক্রিকেটাররা। দিবারাত্রির টেস্টের জন্য মানসিকভাবে চাঙ্গা হতে এসবও তো কম নয়। অবশ্য ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রথম টেস্টের ব্যর্থতার স্মৃতি ইন্দোরেই রেখে যাচ্ছেন তারা। কারণ ইডেনে লিখতে চান নতুন টেস্টের রোমাঞ্চকর কাব্য।

গোলাপি বলে দিবারাত্রির টেস্ট ম্যাচ নিয়ে ভারতীয় দলের খেলোয়াড়রাও তো কম রোমাঞ্চিত নন। বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মারাও উন্মুখ হয়ে আছেন ঐতিহাসিক টেস্ট ম্যাচ খেলতে। ইন্দোর থেকে স্বাগতিক দলও টাইগারদের সহযাত্রী। যদিও এই যাত্রায় ভারতের বেশ কয়েকজন তারকা ক্রিকেটার থাকছেন না। বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মাসহ চারজন ক্রিকেটার ছুটি নিয়ে বাড়ি চলে গেছেন ইন্দোর টেস্ট তিন দিনে শেষ করে। ভারতীয় দলের মিডিয়া ম্যানেজার শুভ্রামান আনন্দ জানান, দুই দিন ছুটিতে থাকা ক্রিকেটাররা নিজ উদ্যোগেই আজ কলকাতায় দলের সঙ্গে যোগ দেবেন।