মেসির হাতে রেকর্ড ষষ্ঠ ব্যালন ডি'অর

প্রকাশ: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: টুইটার

ব্যালন ডি'অর লিওনেল মেসি পাচ্ছেন সেই খবর আগেই বের হয়েছে। ফাঁস হয়েছে ব্যালন ডি'অরের একটি তালিকাও। গেলবারের ব্যালন ডি'অর জয়ী রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার লুকা মডরিচ নতুন বিজয়ী মেসির হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন সেই সংবাদও দিয়েছে মার্কা। বাকি ছিল আনুষ্ঠানিকতা।

প্যারিসে সোমবার রাতে 'ফ্রান্স ফুটবল' সাময়িকীর সেরা ফুটবলার হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হল বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসির নাম।

রোনালদোকে ছাড়িয়ে লিও জিতে নিলেন রেকর্ড ছয়টি ব্যালন ডি'অর। এর আগে রোনালাদো এবং মেসি সমান পাঁচটি ব্যালন ডি'অর জিতে রেকর্ড গড়েছিলেন। সেটা এখন এককভাবে নিজের করে নিলেন মেসি। উল্লেখ্য 'ফ্রান্স ফুটবল' সাময়িকী ১৯৫৬ সাল থেকে ব্যালন ডি'অর দেওয়া শুরু করে।

এবারের মৌসুমে সেরা ফুটবলার পুরস্কারের জন্য ৩০ জন মনোনীত হন। এর মধ্যে বার্সেলোনার লিওনেল মেসি, লিভারপুলের ভার্জিল ভ্যান ডাইক এবং জুভেন্টাসের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ব্যালন ডি'অরের ফেবারিট হিসেবে চূড়ান্ত তালিকায় স্থান পান।

মেসি-রোনালদো যুগ শুরু হওয়ার আগে ২০০৭ সালে ব্রাজিলের এসি মিলান ফরোয়ার্ড রিকার্ডো কাকা ব্যালন ডি'অর জেতেন। এরপর শুরু হয় রোনালদো-মেসির সাপলুডু খেলা। সঙ্গে ব্যালন ডি'অরে রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনা আধিপত্যও। এক দশক মেসি-রোনালদো পুরস্কারটি নিজেদের করে রাখেন। গেল মৌসুমে লুকা মডরিচ তাদের রাজত্ব নিজের দখলে নেন। কিন্তু এবার আবার রাজত্ব পুনরুদ্ধার করলেন মেসি। ২০১৫ সালের পরে জিতলেন সেরার এই পুরস্কার। তবে রিয়াল-বার্সার আধিপত্যে ছেদ পড়েনি।

মেসি গেল মৌসুমে বার্সার হয়ে ৪০ গোল করেছেন। সঙ্গে সহায়তা দিয়েছেন ১৭ গোলে। চ্যাম্পিয়নস লিগে এবং লা লিগায় তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন। দলকে লা লিগা এবং সুপার কোপা জিতিয়েছেন। গোলের সামনে তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণেই ব্যালন ডি'অর জিতেছেন তিনি। এখন ফিফার বর্ষসেরা পুরুষ ফুটবলারের পুরস্কারও ডাকছে তাকে। নিয়ম অনুযায়ী, ব্যালন ডি'অর জয়ীই ফিফার বর্ষসেরার পুরস্কার জেতেন।

ব্যালন ডি'অরের তালিকায় দুইয়ে থেকে শেষ করেছেন লিভারপুল ডিফেন্ডার ভার্জিল ভ্যান ডাইক। দলকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানোয় তিনি ব্যালন ডি'অরের অন্যতম দাবিদার ছিলেন। রোনালদোর জায়গা হয়েছে সেরা তিনে। এছাড়া লিভারপুলের দুই ফরোয়ার্ড সাদিও মানে চারে এবং মোহামেদ সালাহ পাঁচে থেকে শেষ করেছেন।