ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভরাডুরির পর এখনও স্বরূপে ফিরতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। কোচিং স্টাফ বদল হয়েছে। বোর্ড পরিচালনায় আনা হয়েছে নতুনত্ব। এবার ভবিষ্যতের চিন্তায় ফ্যাফ ডু প্লেসিসকে সরিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়ানডে অধিনায়ক করা হয়েছে কুইন্টন ডি কককে। এছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকার ঘোষিত এই দলে বেশ নতুনত্বও আছে।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজে দলকে ডি কক নেতৃত্বে দেবেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজের তৃতীয়টি শেষ হয়েছে। আগামী শুক্রবার মাঠে গড়াবে সিরিজের শেষ টেস্ট। এরপর শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজ। ওই সিরিজের দলেও নেই ফ্যাফ ডু প্লেসিস।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৫ সদস্যের ওয়ানডে দলের পাঁচজনের এখনও অভিষেক হয়নি। এদের মধ্যে সিম্পালা পেস বোলার। ২০১৭ সালে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট অভিষেক হয়েছে তার। মাগালাও পেস বোলিং করেন। ম্যালান হলেন ক্রিকেটার পিটার ম্যালানের ছোট ভাই। তিনি ঝড়ো ব্যাটিংয়ের জন্য এরই মধ্যে খ্যাতি পেয়েছেন। লিস্ট 'এ' ক্রিকেটে খেলেছেন ১৭০ রানের ইনিংস। ফরচুইন স্পিন অলরাউন্ডার হিসেবে দলে এসেছেন। আর ভারানি বিকল্প উইকেটরক্ষক হিসেবে প্রোটিয়া দলে জায়গা পেয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক গ্রায়েম স্মিথ বলেন, 'আমরা জানি যে, ডি কক দারুণ এক ক্রিকেটার। বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান সে। আমরা আশা করছি অধিনায়কের দায়িত্ব তার থেকে সেরাটা বের করে আনবে। নতুন দায়িত্ব দিয়ে তাকে শুভকামনা জানাচ্ছি।' প্রোটিয়া ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক জানান, এই দল নির্বাচন করতে পেরে তারা খুশি। এটা ২০২৩ বিশ্বকাপ নিয়ে তাদের পরিকল্পনা শুরু ইঙ্গিত বলেও উল্লেখ করেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়ানডে দল: কুইন্টন ডি কক (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), রেজা হেনরিক, টেন্ডা বাভুমা, ভ্যান ডার ডুসন, ডেভিড মিলার, জ্যানিমান ম্যালান, জন জন স্মুর্টস, আন্দালি ফেলুকাও, লুথো সিপামলা, লুঙ্গি এনগিডি, বিহন ফরচুইন, তাবারেজ শামসি, সিসানদা মাগালা, ব্রুনো হেনরিক, কাইল ভারানি।