তিন দফা সফর নিয়ে বিসিবির ব্যাখ্যা

প্রকাশ: ১৫ জানুয়ারি ২০২০      

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ছবি: ফাইল

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন গত রোববার সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তান সফর নিয়ে ইতিবাচক বার্তা দিয়েছিলেন। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় জিও (গভর্নমেন্ট অর্ডার) দেওয়ার পর সফর হওয়ার বিষয়টি অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। মঙ্গলবার দুবাইয়ে আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরের মধ্যস্থতায় দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডপ্রধান একটা সমঝেতায় পৌঁছান।

বিকেলে মিটিং চলাকালেই বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী ফোনে ইতিবাচক বার্তা দেন। সন্ধ্যায় পিসিবি থেকেই বিজ্ঞপ্তি দিয়ে সিরিজের সূচি ঘোষণা করা হয়। পরে বিসিবি থেকেও বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ধাপে ধাপে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলার বিষয়টি নিশ্চিত করে।

নিজামউদ্দিন চৌধুরী রাতে দুবাই থেকে ফোনে সমকালকে বলেন, 'আমরা যেভাবে চেয়েছি সেভাবেই সিরিজটি হচ্ছে, তিন ভাগে খেলা হবে। আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর এবং অন্য কর্মকর্তারা আমাদের প্রস্তাব শোনার পর পিসিবিকে মেনে নিতে বলে। ক্রিকেটাররা চাচ্ছিল টি২০ দিয়ে সফর করতে। খেলোয়াড়দের ইচ্ছা এবং মতামতকে অগ্রধিকার দিয়ে সব কিছু করা হয়েছে। বর্তমান সূচিতে সবাই খুশি।'

এফটিপি অনুযায়ী তিন ম্যাচ টি২০ ও দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে ১৭ জানুয়ারি পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ দলের। নতুন সূচি অনুযায়ী, ২১ বা ২২ জানুয়ারি লাহোরে যাবে টি২০ দল। টেস্ট সিরিজের প্রথমটি হবে ফেব্রুয়ারিতে। আর দ্বিতীয় ম্যাচ এপ্রিলে। করাচিতে দ্বিতীয় টেস্টের আগে একটি ওয়ানডে ম্যাচ হবে। যেটা নতুন যোগ হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে বিসিবি সিইও বলেন, 'টেস্ট ম্যাচের আগে এক-দুই দিন প্রস্তুতি নিতে হতো। সেই জায়গায় তারা একটি ওয়ানডে ম্যাচ প্রস্তাব করে। আইসিসি থেকেও নেওয়ার অনুরোধ করা হয়। আইসিসির কথা তো শুনতে হয়, তাই না।'

তিন ভাগে পাকিস্তান সফর হওয়ায় ক্রিকেটাররাও স্বস্তিতে। সৌম্য সরকার যেমন বললেন, 'পাঁচ থেকে ছয় দিনে খেলা শেষ হবে। কোনো সমস্যা নেই। টেস্ট ম্যাচও ভাগে ভাগে হবে। ভালো একটা সিদ্ধান্ত হয়েছে।' সিরিজের সূচি দেখে খুশি জাতীয় দল নির্বাচক হাবিবুল বাশার। তিনি বলেন, 'যেটা হয়েছে খুবই ভালো। আশা করি সেরা দলটাই পাব।'