মেলবোর্নে সোফিয়া সুবাস

প্রকাশ: ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ডব্লিউটিএ টেনিস

ছবি: ডব্লিউটিএ টেনিস

সোফিয়া কেনিন; দুই শব্দের প্রথমটা অনেকের কাছে পুরোনোই মনে হবে। ইতিহাস, ঐতিহ্য কিংবা বিখ্যাতদের জীবনী পড়তে গিয়ে এই শব্দের সঙ্গে পরিচয় হওয়াটা স্বাভাবিক। তবে এই 'সোফিয়া' নামে কিন্তু একটা ফুলও আছে।

এশিয়ায় হয়তো তেমন জনপ্রিয় না; কিন্তু ইউরোপ-আমেরিকায় এই নামের ফুল থেকে বানানো হয় সুগন্ধীও। শনিবার মেলবোর্নে যেন তেমনি এক সোফিয়া-সুবাসে মুগ্ধ হলেন টেনিসপ্রেমীরা। বছরের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে গারবিনে মুগুরুজাকে ৪-৬, ৬-২, ৬-২ গেমে হারিয়ে সোফিয়া তুলে নেন কাঙ্ক্ষিত শিরোপা।

ক্যারিয়ারে এই প্রথম গ্র্যান্ডস্লামের স্বাদ পেলেন সোফিয়া কেনিন। তাও আবার প্রথমবারেই বাজিমাত। ২০১৭ সালে পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু করা এই আমেরিকানের এতদিন সর্বোচ্চ অর্জন ছিল ফ্রেঞ্চ ওপেনের চতুর্থ রাউন্ডে ওঠা। এবার এক লাফেই ছুঁলেন গ্র্যান্ডস্লাম মুকুট। সেইসঙ্গে নতুন রেকর্ডও।

২০০৮ সালে আনা ইভানোভিচকে হারিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতেছিলেন মারিয়া শারাপোভা। তারপর সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে মেলবোর্নের রানী হলেন কেনিন।

প্রথম সেটে ভালোভাবেই সোফিয়াকে বিপাকে ফেলেন মুগুরুজা। কিন্তু পরের দুই সেটে দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়ে জয়টা নিজের করে নেন সোফিয়া। অবশেষে স্বপ্ন সত্যি হলো। টেনিসের সবচেয়ে আরাধ্যের অর্জনটা উঠল সোফিয়ার হাতে।

এমন দিনে তো মহাখুশি হবেনই তিনি, 'অবশেষে আমার স্বপ্নপূরণ হলো। এ মুহূর্তের অনুভূতি আমি মুখে বর্ণনা করতে পারব না। সত্যিই এটি রোমাঞ্চকর। আমি যে পরিশ্রম করেছি তার ফল পেলাম। এই জায়গায় দাঁড়িয়ে খুব ভালো লাগছে। আসলে আপনি যদি কোনো কিছুর স্বপ্ন দেখেন, তাহলে সেটা পূরণের জন্য চেষ্টা করেন, অবশ্যই তার দেখা পাবেন।'

তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, 'এমন উত্তেজনাপূর্ণ পরিবেশে খেলাটাই অন্য রকম। গত দুই সপ্তাহ আমার জীবনের সেরা সময়। সবাইকে হৃদয়ের অন্তস্তল থেকে ভালোবাসা।'

নাওমি ওসাকা, অ্যাশ বার্টি, বিয়াঙ্কা আন্দ্রিস্কুর পর সোফিয়া। একই পথের পথিক তারা। সাবেক নাম্বার ওয়ান মুগুরুজাও কিন্তু কম যাননি। দারুণ কিছুর আভাস দিয়ে নিভে গেলেও টুর্নামেন্টজুড়ে ছিলেন লাইমলাইটে।

তাই তো এই হারে খুব একটা পোড়েনি তার মন, 'এই কোর্টটাই আলাদা লাগে। এখানকার উত্তাপ, হৈচৈ সত্যিই আপনার আত্মবিশ্বাস, আপনার শক্তি-সামর্থ্যকে আরও বাড়িয়ে দেবে। ধন্যবাদ যারা এতদিন আমাকে সমর্থন দিয়েছেন।'