রাওয়ালপিন্ডিতে টস হেরে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশ ২৩৩ রানে প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়ে যায়। পরে ব্যাট করতে নেমে ৪৪৫ রান তোলে স্বাগতিক পাকিস্তান। প্রথম ইনিংস থেকে তারা লিড নেয় ২১২ রানের। জবাব দিতে নামা বাংলাদেশকে ধসিয়ে দিয়েছেন ১৬ বছরের তরুণ পেসার নাসিম শাহ। তিনি ক্যারিয়ারের চতুর্থ টেস্ট খেলতে নেমে তুলে নিয়েছেন হ্যাটট্রিক।

বাংলাদেশ দল তৃতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৬ রান তুলেছে। পাকিস্তানের চেয়ে এখনও পিছিয়ে আছে ৮৬ রান। শুরুতে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ৩৪ রান করে এবং সাইফ হাসান ১৬ রান করে ফিরে যান। দলের রান তখন ৫৩। এরপর মুমিনুল এবং নাজমুল শান্তর ব্যাটে গুছিয়ে উঠছিল বাংলাদেশ। কিন্তু শেষ বেলায় নাসিম শাহর পেসে ডুবল বাংলাদেশ।

তিনি ৪১তম ওভারের চতুর্থ বলে ফেরান নাজমুল শান্তকে। তিনি ৩৮ রান করেন। আগেভাগেই নাইটওয়াচ ম্যান হিসেবে নামিয়ে দেওয়া তাইজুল পরের বলেই আউট হন। এরপর ঠেলায় পড়ে ব্যাট করতে নামা মাহমুদুল্লাহকে ওভারের শেষ বলে আউট করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন নাসিম। তারপরে ব্যাট করতে নামা মোহাম্মদ মিঠুন ১২ বলে ডাক মেরে ইয়াসির শাহর বলে ফিরে যান। মুমিনুল ৩৭ রানে অপরাজিত আছেন। তার সঙ্গে চতুর্থ দিন শুরু করবেন লিটন দাস। 

এর আগে প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যান বাবর আযম ১৪৩ রান করে আউট হন। তার আগে ওপেনার শান মাসুদ পুরোপুরি ১০০ করে সাজঘরে ফেরেন। পাকিস্তানের হয়ে আসাদ শফিক করেন ৬৫ রান। এছাড়া হারিস সোহেলের ব্যাটে থেকে আসে ৭৫ রান।

প্রথম ইনিংসে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বহীন ব্যাটিং বিপাকে ফেলে দিয়েছে দলকে। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস থেকে বাঁ-হাতি পেসার শাহিন আফ্রিদি তুলে নেন ৪ উইকেট। পেসার মোহাম্মদ আব্বাস ও বাঁ-হাতি পার্টটাইম স্পিনার হারিস সোহেল দুটি করে উইকেট নেন। তরুণ গতি তারকা নাসিম শাহ নেন একটি উইকেট। বাংলাদেশের হয়ে আবু জায়েদ ও রুবেল হোসেন তিনটি করে উইকেট নেন। তাইজুল ইসলাম দুই উইকেট এবং একটি উইকেট নেন এবাদত হোসেন।