'চেলসির উচিত কুতিনহোকে দলে নেওয়া'

প্রকাশ: ২৪ এপ্রিল ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ইন্টার মিলান থেকে ধারে ভাস্কো দা গামা এবং পরে লা লিগার দল ইস্পানিওলে যান ব্রাজিলিয়ান আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার ফিলিপে কুতিনহো। এরপর প্রিমিয়ার লিগের দল লিভারপুলে কাটান ক্যারিয়ারের সেরা সময়। কিন্তু বার্সায় এসে দ্রুতই যেন ফুরিয়ে যায় কুতিনহোর চমক। ধারে বায়ার্ন মিউনিখে থাকা এই তারকা তাই আগামী গ্রীষ্মকালীন দলবদলে প্রিমিয়ার লিগে ফিরতে পারেন।

তার দিকে চেলসি, টটেনহ্যাম, আর্সেনালের মতো ক্লাব চোখ রাখছে। ধারের মেয়াদ শেষ করে বার্সায় ফিরলে কাতালান কোচও তাকে রেখে দিতে চান। ওদিকে ইংলিশ লিগের আরেক দল এভারটন তার খোঁজ খবর রাখছে। কার্লো আনচেলত্তির প্রতি প্রভবিত হয়ে সেখানেও যেতে পারেন তিনি।

লিভারপুলে কুতিনহো ফর্মের তুঙ্গে উঠতেই মৌসুমের মাঝ পথে চলে যান বার্সায়। কিন্তু বার্সা তাকে ঠিক কদর করেনি। জনসন তাই বলেন, 'তার সিভির দিকে তাকান। অসাধারণ। দুর্দান্ত প্রতিভা না থাকলে এবং সামর্থ্য প্রমাণ দিতে না পারলে ওইসব ক্লাবে খেলা তো দূরে যাক ঢোকাই যায় না। লিভারপুল ছাড়ার পরে তার সেরাটা সে এখনও খেলতে পারেনি।'

শান্ত মেজাজের কুতিনহোর ওপর বার্সায় কোচের আলাদা নজর ছিল বলে মনে করেন জনসন। তার মতে, কুতিনহো যে বিশেষ কেউ, ক্লাবের পক্ষ থেকে এইটা তাকে জানানো উচিত। বার্সায় তিনি এই বিশেষ যত্নটা পায়নি। চেলতিতে কুতিনহো বিশেষ ওই ভালোবাসা পাবেন। দলের মূল ফুটবলারের একজন হবেন। কুতিনহো চেলসিতে আসলে ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড তার কাঁধে ভরসার হাত রাখবেন বলে বিশ্বাস তার। সেটাই কুতিনহোকে নতুন ড্রেসিংরুমে দ্রুত মানিতে নিতে এবং ভালো খেলতে সহায়তা করবে বলে উল্লেখ করেন ওই ডিফেন্ডার।

তিনি বিশ্বাস করেন, কুতিনহোর ওপর কোচের ওই বিশ্বাসই তার সেরাটা বের করে আনবে। এতে তার কোন সন্দেহ নেই। কারণ জনসনের মতে, 'কুতিনহো প্রমাণ করেছেন তিনি খেলতে পারেন। চেলসির যদি তাকে দলে নেওয়ার সুযোগ থাকে তবে অবশ্যই তাকে নেওয়া উচিত। ছেলেটি হয়তো বিশ্বের সবচেয়ে বড় তারকা না। সবার চেয়ে বেশি দ্রুতগামী না। কিন্তু তার ফুটবল মেধা অসাধারণ।'