কভিড-১৯ মহামারির বিশ্ব পরিস্থিতি এখনও টালমাটাল। বিজ্ঞানীরাও বলতে পারছেন না এক মাস পরে কী হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে বলা হচ্ছে, করোনাভাইরাসকে সঙ্গে নিয়েই বাঁচতে হবে মানুষকে। এই বাস্তবতা মেনে নিয়ে খেলাধুলা শুরু করে দিয়েছে ইউরোপের দেশগুলো।

ক্রিকেট মাঠে ফেরাতে কোমর বেঁধে নেমেছে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। উপমহাদেশে সবার আগে খেলায় ফিরতে চায় শ্রীলংকা। জুলাই-আগস্টে বাংলাদেশ ও ভারতের বিপক্ষে হোম সিরিজ খেলতে উন্মুখ হয়ে আছে দেশটি।

যদিও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এখনও পরিস্থিতি নিয়ে আশাবাদী না, 'কেউ স্বাগত জানাতে চাইলেই তো হলো না। আমরা দল পাঠাতে পারব কি-না, খেলোয়াড়দের পাঠানো ঠিক হবে কি-না, সেটাও দেখতে হবে। আইসিসি, এসিসি কী করে সেটা পর্যবেক্ষণে রাখব।’

তিনি বলেন, ‘আজ হয়তো শ্রীলংকা খেলার জন্য সুরক্ষিত আছে, কাল নাও থাকতে পারে। কেউ বলতে পারে না, কবে কোথায় গিয়ে করোনার প্রাদুর্ভাব থামবে। সফর করতে গেলে তাই আমাদের অনেক কঠিন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমরা ‍জুলাই না-কি আগস্টে মাঠে খেলা ফেরাতে পারতে সেটা তাই এখনও ঠিক করতে পারি নি।’

আগামী ২৮ মে অনলাইনে সব দেশের ক্রিকেট বোর্ড আইসিসির বোর্ড মিটিংয়ে বসবে। পাপন জানান, টি-২০ বিশ্বকাপের সূচি পুনরায় নির্ধারণ করার জন্য ওই মিটিং, ‘সভায় টি-২০ বিশ্বকাপের সূচি নতুন করে করা নিয়ে আলোচনা হবে। দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়ে ওখানে কথা তোলার সুযোগ নেই।’