সময়টা ক্রিকেটারদের জন্য কঠিন। বিশেষ করে যারা এখনও অনুশীলনে ফিরতে পারেননি। ফিটনেস নিয়ে শঙ্কা তো আছেই। দীর্ঘ লকডাউন অনেকের ফর্মেও জং ধরিয়ে দিতে পারে। বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক তাই মনে করেন, এ সময় মানিসকভাবে প্রস্তুত থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ। আর এ বছর বিশ্রাম পেলেও আগামীতে অনেক চাপ অপেক্ষা করছে ক্রিকেটারদের সামনে।

ক্রিকইনফোকে ‍মুমিনুল বলেন, ‘অবশ্যই ক্রিকেট মিস করছি। খারাপ লাগছে। অনেকের মতো, বছরটা নিয়ে আমার বেশ কিছু পরিকল্পনা ছিল। সেটা বাধার মুখে পড়লো। তবে এটা আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই ভেবেই স্বান্তনা।’ এরই মধ্যে বাংলাদেশের আটটি টেস্ট স্থগিত হয়েছে। তবে মুমিনুলের আশা টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হওয়ায় ম্যাচগুলো পরে পাওয়া যাবে।

তিনি তাই ক্রিকেটারদের উন্নতি ধরে রাখার দিকে মনোযোগ দিতে বললেন। বাংলাদেশের পেস বোলাররা টেস্টে উন্নতির আভাস দিচ্ছিলেন। মুমিনুল চান, খেলা শুরু হলে পেসাররা সেখান থেকেই শুরু করুক। ক্রিকেটারদের ফোকাস ঠিক থাকুক। সেজন্য টেস্ট অধিনায়ক নিয়মিত ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। বিশেষ করে তরুণদের সঙ্গে।

তিনি বলেন, ‘ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলছি। বিশেষ করে তরুণদের সঙ্গে। লকডাউনে সময় কিভাবে কাটছে। কী করছে। তামিম-মুশফিকদের সঙ্গেও কথা হচ্ছে। নেতৃত্ব পাওয়া সুবাদে সবার খোঁজ নেওয়ার সুযোগ আমার হয়েছে।’ তিনি তাই সকলকে মানসিক প্রস্তুতি রাখতে বললেন। মুমিনুল যেমন কুরআন পড়ে, অনেকের আত্মজীবনী পড়ে এবং মোটিভেশনাল ভিডিও দেখে সময় কাটাচ্ছেন।

বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক বলেন, ‘পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে বল-ব্যাট নিয়ে থাকাটা আমাদের রক্তে মিশে গেছে। দুই-তিন মাস বাসায় আবদ্ধ থেকে হয়তো ফিটনেস নিয়ে কাজ করা যায়। কিন্তু মানসিকভাবে শক্ত থাকা বেশি দরকারি। সঙ্গে আমাদের মাথায় রাখতে হবে, এ বছর যেমন বিশ্রাম পাচ্ছি। সামনের বছর আমাদের দম ফেলানোর ফুসরত থাকবে না।’

বিষয় : মুমিনুল টেস্ট অধিনায়ক খেলা ক্রিকেট

মন্তব্য করুন