লিওনেল মেসি বার্সেলোনায় থেকে যেতে বাধ্য হয়েছেন। মেসির ক্লাব ছাড়তে চাওয়ার অন্যতম কারণ ছিল বার্সার ভালো ভবিষ্যত না দেখা। প্রকেক্ট না থাকা। মেসি থেকে গেলেও বার্সা সেই প্রজেক্ট তৈরির পথে খুব একটা এগোতে পারিনি। এখনও বার্সা কিনতে পারেনি কার্যকর কোন ফুটবলার।

অথচ তাদের অন্তত একটা সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার এবং একজন স্ট্রাইকার খুবই দরকার। রাইট ব্যাক নিয়েও আছে দুশ্চিন্তা। আলোচনায় থাকা এরিক গার্সিয়াকে এখনও আনতে পারেনি বার্সা। চুক্তির বিষয়ে এগোতে পারেনি উইজনালডমের ক্ষেত্রে। লউতারো মার্টিনেজ কিংবা মেপিস ডিপের ব্যাপারটাও হয়নি সুরহা। কোম্যানকে তাই হাতে থাকা দল নিয়েই শুরু করতে হচ্ছে পরিকল্পনা।

গোলরক্ষক হিসেবে বার্সায় মার্ক টের স্টেগানকে নিয়ে প্রশ্ন নেই। সেন্ট্রাল ডিফেন্সে জেরার্ড পিকে এবং ক্লাইমেন্ট লিংলেটই এখন পর্যন্ত ভরসা। যদিও তাদের দু’জনেই অনাস্থা বার্সার। লেফট উইঙ্গে নেলসন সেমেদো। যাকে বিক্রির চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে বার্সা। আর রাইট ব্যাকে থাকবেন জর্ডি আলবা। যার বিকল্প খুঁজে হয়রান কাতালানরা।

ছবি: মার্কা

মিডফিল্ডে কোম্যানের প্রথম পছন্দ হয়ে উঠতে পারেন ডি জং। তাকে জায়গা করে দিতে বেঞ্চে বসতে হবে সার্জিও বুসকেটসকে। অন্য পাশে পিয়ানিচকে খেলাতে পারে বার্সা। অথবা কুতিনহো হতে পারেন শুরুর একাদশের ফুটবলার। তবে উইজনালডম শেষ পর্যন্ত বার্সায় আসলে বদলে যেতে পারে ছক। মেসিকে সেন্ট্রাল মিডফিল্ডে রেখে দল সাজানোর পরিকল্পনা কোম্যানের।

দুই উইঙ্গ দিয়ে কোম্যান খেলাতে পারেন উসমান ডেম্বেলে এবং আনসু ফাতিকে। শুরুর একাদশে খেলার জন্য ফাতি প্রস্তুত। কিন্তু সর্বোচ্চ পর্যায়ের ফুটবলে ১৭ বছরের তরুণ ‍শুরুর একাদশে খেলার চাপ সামলে  ইনজুরি ঝুঁকি মুক্ত থাকতে পারবেন কিনা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। অন্য প্রান্তে ইনজুরিতে সারা বছর পার করে দেওয়া ডেম্বেলে ভরসা রাখতে হবে কোম্যানকে। আর সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড বা স্ট্রাইকার হিসেবে দেখা যেতে পারে অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানকে। তবে হাতে ভালো বিকল্প না থাকলে কোম্যানের ৪-৩-৩ এই ছক দাঁড়াবে কি-না তা নিয়ে থাকছে সংশয়।