বিসিবিকে সফরের ‘প্রস্তুতি’ নিতে বলেছে শ্রীলংকা

প্রকাশ: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০     আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০       প্রিন্ট সংস্করণ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

হাঁটু গেড়ে কী দেখছিলেন রাসেল ডমিঙ্গো ও মুমিনুল হক? গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তোলা ছবি- বিসিবি

হাঁটু গেড়ে কী দেখছিলেন রাসেল ডমিঙ্গো ও মুমিনুল হক? গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তোলা ছবি- বিসিবি

বিসিবিকে মৌখিকভাবে সফরের প্রস্তুতি নিতে বলা হলেও গতকাল পর্যন্ত চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। তবে কভিড নিয়ন্ত্রণ টাস্কফোর্সের পর দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করে গ্রহণযোগ্য সমাধানের পথ খুঁজছে এসএলসি। টাইগারদের কোয়ারেন্টাইনের সময় সাত দিন করা, স্কোয়াডের সদস্য সংখ্যা বাড়ানো নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে এসএলসি ও দেশটির একাধিক সাংবাদিক জানান।

এ ব্যাপারে লঙ্কান বোর্ড থেকে লিখিত না পাওয়া পর্যন্ত মিডিয়ায় কথা বলতে রাজি হচ্ছেন না বিসিবি কর্মকর্তারা। তবে বিসিবি কিছু উদ্যোগ সফল হওয়ার ব্যাপারে ইঙ্গিত দেয়। ক্রিকেটারদের কভিড টেস্টের জন্য ১৭ থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত একক অনুশীলন স্থগিত করা হয়েছে দেশের সব ভেন্যুতে। স্কোয়াডের সদস্যরা হোটেলে উঠবেন ২০ সেপ্টেম্বর। জাতীয় দল ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত সবাইকে সেভাবে প্রস্তুতি নিতে বলেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী।

যদিও লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের ব্যাপারে প্রাথমিকভাবে অনড় রয়েছে বলে ক্রিকইনফোর প্রতিবেদনে জানা যায়। তবে প্রস্তাবটি পর্যালোচনা করে মতামত দেওয়ার জন্য দেশটির কভিড বিশেষজ্ঞদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

অক্টোবর-নভেম্বরে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজটি আয়োজনে এসএলসি কর্মকর্তাদের আন্তরিকতা চোখে পড়ার মতো। গত দু'দিন টাস্কফোর্স ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সভা করে টাইগারদের সফরের প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে কাজ করেছে এসএলসির উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি। মঙ্গলবার 'ন্যাশনাল অপারেশন সেন্টার ফর প্রিভেনশন অব কভিড-১৯ আউটব্রেক' প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল শাভেন্দ্রা সিলভার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বাংলাদেশ দলের সফর ও শ্রীলঙ্কান প্রিমিয়ার লিগ (এসপিএল) আয়োজনের সহযোগিতা চেয়েছেন এসএলসি সভাপতি শাম্মি সিলভা। জেনারেল শাভেন্দ্রার কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়াও পেয়েছেন তারা।

লঙ্কান একজন সাংবাদিক জানান, গতকাল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের কাছে বাংলাদেশ দলের সাত দিনের কোয়ারেন্টাইনের যৌক্তিকতা তুলে ধরেছেন এসএলসি কর্মকর্তারা। ঢাকায় টাইগারদের সাত দিনের হোটেলবাসকে কোয়ারেন্টাইন হিসেবে গণ্য করে ডাম্বুলায় সাত দিনের কোয়ারেন্টাইনের অনুমোদন চাওয়া হয়েছে। লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এতে রাজি হয়নি। শ্রীলঙ্কায় কভিড পরিস্থিতি ভালো হওয়ায় ঝুঁকি এড়াতে কোনো ধরনের আইন শিথিল করার পক্ষে নয় তারা। বিসিবির প্রস্তাব ছিল, ডাম্বুলায় ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে প্রথম সাত দিন হোটেলের মধ্যেই কর্মকাণ্ড সীমাবদ্ধ রাখা। পরের সাত দিন আইসোলেশনে থেকে বায়োসিকিউর বাবলের মধ্যে হোটেল থেকে মাঠে গিয়ে অনুশীলন করা। বিসিবির এ প্রস্তাবও দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে দিয়েছে এসএলসি। এতেও রাজি হয়নি তারা।

তবে লঙ্কান বোর্ডের আন্তরিকতা দেখে বিসিবিও আশাবাদী, দু-এক দিনের মধ্যেই কলম্বো থেকে ভালো খবর পাবেন তারা। সে রকম বার্তাও পেয়েছেন ফোনে। গতকাল দুপুরেও বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিনের সঙ্গে কথা বলেছেন এসএলসি কর্মকর্তারা। তবে গত দু'দিনের অগ্রগতি সম্পর্কে কোনো পক্ষই অফিশিয়াল বিবৃতি দেয়নি। শ্রীলঙ্কান সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষণ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে আরও দু-তিন দিন লেগে যেতে পারে।