শোয়েবের চেয়ে ১৫ মাইল গতি তুলতেন হামিদ?

প্রকাশ: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ফাইল

ছবি: ফাইল

শোয়েব আখতার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট রেকর্ড গতিময় বলটা করেছেন ১৬১.৩ কিলোমিটার জোরে। মাইলের হিসেবে যা ঘণ্টায় ১০০ মাইলের একটু বেশি। তার চেয়ে ঘণ্টায় ১৫ মাইল গতিতে বল করতে পারতেন বলে দাবি করেছেন পাকিস্তানের সাবেক পেসার ফারুক হামিদ।

এমনকি স্যার ডন ব্রাডম্যান, ইমতিয়াজ আহমেদ এবং জহির আব্বাসরা তাকেই তখনকার সবচেয়ে গতিময় পেসার মনে করতেন বলেও দাবি করেছেন ফারুক। কিন্তু তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার মাত্র এক টেস্টের। ওই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাত্র এক উইকেট নিয়েছিলেন ৪৩টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলা হামিদ।

তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার না এগোনোর জন্য ৭৫ বছর বয়সী হামিদ দায়ী করেছেন হানিফ মোহাম্মদ ও তার ভাই ওয়াজির আলীকে। তারা দু’জন সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন যেন ফারুক হামিদের ক্যারিয়ার না দাঁড়ায়। এ নিয়ে বেশ কিছু ঘটনার কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি।

পাকিস্তানের শীর্ষ পর্যায়ের সংবাম মাধ্যম ডনকে এক সাক্ষাৎকারে ফারুক হামিদ বলেছেন, ‘আমার সব সতীর্থরাই জানেন অধিনায়কদের থেকে আমি কেমন ব্যবহার পেয়েছি। ওই তালিকায় শুরুর দিকে থাকবেন বিখ্যাত হানিফ মোহাম্মদ এবং তার ভাই ওয়াজির মোহাম্মদ। হানিফ মোহাম্মদের আত্মা শান্তিতে থাকুক। তারা দু’জন চেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া সিরিজের পরে আমি যেন আর জীবনে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে না পারি।’

নিজেকে শোয়েব আখতারের চেয়ে গতিময় পেসার হিসেবে দাবি করা ফারুক হামিদ। ছবি: ফাইল

হামিদ বলেছেন, ‘নিউজিল্যান্ডে এক সফরে প্রস্তুতি ম্যাচে তিনি ১৬ রানে ৭ উইকেট নিয়েছিলেন। প্রতিপক্ষ ১০ ওভারের মধ্যে ৫৩ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু মূল ম্যাচের দিন সবাই অবাক হয়ে গিয়েছিল যে, একই মাঠে টেস্টের দিন আমি মূল দলে ছিলাম না। এমনকি পরের দুই টেস্টের দলেও আমার জায়গা মেলেনি।’

আরেকটি ঘটনার কথা উল্লেখ করে হামিম জানান, পাকিস্তানের ইগলস টিম ইংল্যান্ড সফরে গিয়েছিল। ওই সফরে তিনি প্রথম ৩ ওভারে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। তারপরও অধিনায়ক ওয়াজির মোহাম্মদ তাকে আর বোলিংয়ে নিয়ে আসেনি। ওই ম্যাচের পরে এমসিসির সেক্রেটারি বলেছিলেন ফ্রেডেরিক ট্রুমানের চেয়েও গতিতে বল করেছেন হামিম।

ফারুক দাবি করেছেন, কায়েদ ই আযম ট্রফিতে ১৯৬৯ সালে তৃতীয় বলে ইনসুইং ইয়র্কারে হানিফকে বোল্ড করে দেন তিনি। এরপর থেকে তাকে ব্রাডম্যান, জহির আব্বাসের মতো তারকারা সবচেয়ে গতির বোলার বলে স্বীকার করে নেন। এমনকি ওয়েস্ট ইন্ডিজের চার্লি গ্রিফিটের চেয়েও জোরে বল করতেন বলে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। তবে অনেক কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান তার বাউন্সে ভয় পেলেও পাকিস্তানের টেস্ট ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ ইলিয়াস তার বাউন্সে হুক মেরে দিতেন বলে উল্লেখ করেন ফারুক হামিদ।