ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪

নিগারদের বেতন বকেয়া পড়ার কারণ

নিগারদের বেতন বকেয়া পড়ার কারণ

ছবি: ফাইল

ক্রীড়া প্রতিবেদক, সিলেট থেকে 

প্রকাশ: ২৯ নভেম্বর ২০২৩ | ১২:৪৫ | আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০২৩ | ১২:৫৬

ছেলেদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মেয়েদের ক্রিকেটের সাফল্যও। চলতি বছর ভারতের বিপক্ষে সিরিজ ড্র। পাকিস্তানকে দুই ফরম্যাটে সিরিজ হারানো। সব মিলিয়ে এই ক’দিনে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের উন্নতিটা ছিল চোখে পড়ার মতো। এর মধ্যে অপ্রত্যাশিত খবর টানা পাঁচ মাস বেতন বকেয়া পড়ে যাওয়া! 

গতকাল সিলেটে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড টেস্ট চলাকালে এ নিয়ে কথা বলেন নারী উইংয়ের চেয়ারম্যান শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। তিনি বিষয়টিকে অনাকাঙ্ক্ষিত বলে উল্লেখ করেছেন। 

নাদেল বলেন,

‘দেখুন, আমরা নারী উইং থেকে যে প্রস্তাবনাটা বোর্ডে উপস্থাপন করেছিলাম, সে জায়গায় একটু সংযোজনের বিষয় ছিল। সেই কারণে আসলে অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে দেরি হয়ে যায়। এবং বেশ দেরি হয়। আমরা যখনই বিষয়টা জানতে পারি, বোর্ড সভাপতি ও সিইওর সঙ্গে কথা বলেছি। তারপর সেটা প্রসেস হয়েছে এবং আমি যতটুকু জানি খেলোয়াড়দের বেতন তাদের অ্যাকাউন্টে চলে গেছে।’ 

বকেয়া বেতন এরই মধ্যে নিগারদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে চলে গেছে বলে জানালেও তিনি পুরুষ ও নারীর সমতার বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এভাবে, ‘দুঃখজনকভাবে আমাকে কেউ বিষয়টি অবহিত করেনি। আমাদের উইংস থেকে নামটা পাঠিয়ে দিয়েছি আমাদের ওই সময় আর করণীয় ছিল না। প্লেয়াররাও যেহেতু সিরিজের মধ্যে ছিল, তাদেরও ব্যস্ততা ছিল। তারা কেউ কিন্তু বিষয়টা আমাদের অবহিত করেনি। আমাদের যদি একটু অবহিত করত, আমরা নিশ্চিত ত্বরিত পদক্ষেপ নিতে পারতাম। আমরা যতই জেন্ডার নিয়ে কথা বলি না কেন। আমরা মুখে যেটা বলি, কার্যকলাপের মধ্য দিয়ে সেটা খুব সামঞ্জস্যপূর্ণ হয় না– এটা আমাদের সবাইকে মেনে নিতে হবে।’

অবশ্য নারী উইংয়ের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়টা যে তাঁর ওপরও বর্তায়, সেটা মেনে নিয়েছেন নাদেল, ‘তাদের কাছে বোর্ডের পক্ষ থেকে কমিটমেন্ট ছিল, সেটা দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানের সঙ্গে দুই ফরম্যাটেই সিরিজ জেতার পর দল, কোচসহ অন্য যারা ছিলেন, তাদেরও বোনাস দেওয়া হয়েছে। আমি যেহেতু নারী উইংয়ের দায়িত্বে আছি, এই যে বিলম্ব হলো, এই দায়টা আমার এড়ানোর সুযোগ নেই।’

আরও পড়ুন

×