জাতীয় দলের ওয়ানডে সিরিজ শুরু ২০ জানুয়ারি। ১০ জানুয়ারি থেকে কন্ডিশনিং ক্যাম্প। বিদেশি কোচিং স্টাফরা ঢাকায় আসতে শুরু করে দিয়েছেন। কন্ডিশনিং ও ফিটনেস ট্রেনার নিক লি এবং ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাতো শনিবার ঢাকা পৌঁছে গেছেন। নিয়মিত কোচিং স্টাফের বাকি সদস্যরা কর্মস্থলে ফিরবেন ৮ জানুয়ারি সকালে।

প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ও ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক আসবেন দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বার্বাডোজ থেকে ফিরবেন পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। তবে তাদের আগেই হয়তো চলে আসবেন নতুন ব্যাটিং কোচ জন লুইস। টিকিট হাতে পেলেই ঢাকার বিমান ধরবেন এ ইংলিশ। বিসিবি থেকে জানা গেছে, দ্বিপক্ষীয় চুক্তি হওয়ার পর বিসিবির কাছ থেকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন তিনি। বিমানের টিকিটের জন্য এখন অপেক্ষায় রয়েছেন। সবার শেষে আসবেন স্পিন বোলিং পরামর্শক ড্যানিয়েল ভেট্টরি।

কোচিং স্টাফের সদস্যরা ফিরতে শুরু করায় ক্যাম্পের জন্য দল ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিসিসি। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানান, আজ ২৪ সদস্যের প্রথমিক স্কোয়াড ঘোষণা করতে চান তারা। টেস্ট ও ওয়ানডে স্কোয়াডের সদস্যদের একসঙ্গে হোটেলে তোলা হবে। বায়োসিকিউর বাবলে থেকে অনুশীলন করবেন তারা। নান্নু বলেন, '১৪ ও ১৬ জানুয়ারি নিজেদের মধ্যে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা হবে। চূড়ান্ত স্কোয়াড সাজাতে যেটা কাজে দেবে।'

স্কোয়াড চূড়ান্ত করা নিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে নির্বাচকদের সঙ্গে ভার্চুয়াল সভায় যোগ দিয়েছিলেন কোচরা। এক-দুটি জায়গায় মতৈক্যে পৌঁছাতেই এ উদ্যোগ নিয়েছেন ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান।

টাইগারদের ম্যাচ শেষ হওয়ার দু'দিন পর গা গরমের ম্যাচে নামবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ১৮ জানুয়ারি বিকেএসপিতে ৫০ ওভারের ম্যাচ খেলবে বিসিবি দলের বিপক্ষে। নান্নু জানান, ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে বিকল্প দল দেওয়া হবে। ২৮ জানুয়ারি থেকে চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠেয় চার দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের জন্যও থাকবে ভিন্ন দল। একই সময়ে বন্দরনগরীর দুই মাঠে চলবে প্রস্তুতি ম্যাচ। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে নিজেদের মধ্যে লাল বলের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন মুমিনুলরা।