মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচেই জিতেছে বাংলাদেশ। ফেবারিটের মতো, উচ্ছ্বাস ছাড়া। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টাইগারদের সামনে এখন ক্যারিবীয়দের ধবলধোলাইয়ের সুযোগ। একই সঙ্গে আফিফ হোসেন, তাসকিন আহমেদ, তাইজুলদের বাজিয়ে দেখার সুযোগ।

তবে শেষ ওয়ানডে ম্যাচে খুব বেশি পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ দেখছেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তার মতে, ২০২৩ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে হলে ওয়ানডে ভিত্তিক আইসিসি সুপার লিগের প্রত্যেকটি ম্যাচ গুরুত্বপূর্ণ।

শনিবার সংবাদ মাধ্যমকে পাপন বলেন, 'একাদশে হয়তো পরিবর্তন আসবে। কিন্তু আমরা কাউকে হালকা করে দেখতে চাই না। বরং মনে রাখতে হবে যে, আইসিসি সুপার লিগের এটা কেবল শুরু। আমরা এরই মধ্যে ২০ পয়েন্ট পেয়ে গেছি। আমাদের জন্য প্রত্যেকটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের বিশ্বকাপে সরাসরি জায়গা করে নিতে হবে। সুতরাং প্রত্যেকটি ম্যাচই আমরা গুরুত্ব সহকারে নেব।'

আগামী ওয়ানডে বিশ্বকাপে র‌্যাংকিংয়ের সেরা আট দল সরাসরি বিশ্বকাপে খেলবে। ওই বিশ্বকাপের অংশ হিসেবে প্রত্যেকটি দলের বিপক্ষে হোম এবং অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। বিসিবি সভাপতির মতে, বড় দলের বিপক্ষে ঘরের মাঠে বাংলাদেশের জয়ের কীর্তি আছে। কিন্তু বিদেশের মাটিতে কাজটা বাংলাদেশের জন্য কঠিন। সেজন্য হোম সিরিজ থেকে সর্বোচ্চ পয়েন্ট অর্জন করে নেওয়ার পক্ষে তিনি।

বিসিবি সভাপতি পাপন বলেন, 'আমাদের শক্তিশালী দলের বিপক্ষে তাদের মাঠে গিয়ে খেলতে হবে। ঘরের মাঠে আমরা ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েছি। কিন্তু বিদেশের মাটিতে খুব বেশি ম্যাচ জিততে পারিনি। প্রতিটা ম্যাচ আমাদের তাই গুরুত্বের সঙ্গে নিতে হবে। যত সম্ভব জয় তুলে নিতে হবে।'

বাংলাদেশ চলমান এই সিরিজের জন্য ১৮ জন ক্রিকেটারকে জৈব্য সুরক্ষা বলয়ে রেখেছে। প্রথম দুই ম্যাচে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে খেলেছে টাইগাররা। তারপরও সিরিজের শেষ ম্যাচে পরিবর্তনের খুব বেশি জায়গা নেই। টিম ম্যানেজমেন্ট কেবল স্পিন আক্রমণে মেহেদি মিরাজের জায়গায় শেখ মাহেদি হাসান কিংবা তাইজুল ইসলামকে ঝালিয়ে দেখতে পারে। পেস আক্রমণে নতুন বলে শরিফুল ইসলাম কিংবা তাসকিন আহমেদকে কেমন করেন দেখে রাখতে পারে।